ঈদগাঁও সংবাদদাতা:
কক্সবাজার সদরের ইসলামপুরের মধ্য নাপিতখালী এলাকার এক প্রতিবন্ধী শিক্ষকের মালিকানাধীন ৪৫ শতক জমিতে রোপিত ধানক্ষেত গুঁড়িয়ে নষ্ট করে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।
গত রবিবার (৬ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাতে ঘটনাটি ঘটে।
অভিযোগ এসেছে, শুধু ধানক্ষেত নষ্ট করে দিয়ে ক্ষান্ত নয় অপরাধীরা। জমি দখল, উল্টো মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো ও প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এতে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন প্রতিবন্ধী নাজিম উদ্দিন। তিনি মধ্য নাপিতখালী এলাকার এজাহার আহমদের ছেলে ও চকরিয়া সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক।
ক্ষতিগ্রস্ত নাজিম উদ্দিনের অভিযোগ, ৬ ভাইয়ের মধ্যে তিনি একমাত্র শারীরিক প্রতিবন্ধী। তাই তার মা গুলচেহের বেগম ২০১৩ সালে (গত ৩০ আগস্ট মারা যান) তাকে ‘হেবা দলিল’মূলে ৪৫ শতক চাষযোগ্য জমি দানপত্র করেন। সেই দানপত্রমূলে জমির বিএস খতিয়ানও সৃজিত হয়। যার নং- বিএস-১৫৭৬ ও বিএস-২০০৫/১। মালিকানাসুত্রে তিনি ওই জমিতে দীর্ঘদিন যাবত চাষাবাদ করে আসছেন। যা এলাকাবাসী অবগত।
সম্প্রতি জমিতে ধানের চারা রোপন করেন নাজিম উদ্দিন। কিন্তু জমির মালিকানা দাবি করে হালিম উল্লাহ, হামিদুর রহমান, কামরুজ্জামান ঈদুসহ কয়েকজন দুর্বৃত্ত রাতের অন্ধকারে রোপিত ধান চারা নষ্ট করে দেয়। এরপর থেকে তারা নানাভাবে হমকী-ধমকী দিচ্ছে। মিথ্যা মামলায় ফাঁসাবে বলে প্রচার করে বেড়াচ্ছে।
নাজিম উদ্দিনের দাবি, ওই জমি তার নানা মরহুম আমিরুজ্জামান থেকে মা মরহুমা গুলচেহের বেগম প্রাপ্ত হন। শারীরিকভাবে অক্ষম (প্রতিবন্ধী) সন্তান হিসেবে মায়ের পক্ষ থেকে হেবা মূলে জমির মালিক হন নাজিম উদ্দিন। দীর্ঘদিনের তার মালিকানাধীন জমি জোরপূর্বক দখলে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে একটি চক্র। এ বিষয়ে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন প্রতিবন্ধী শিক্ষক নাজিম উদ্দিন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •