নিজস্ব প্রতিনিধি, কুতুবদিয়া:
বঙ্গোপসাগর থেকে মাছ ধরে উপকূলে ফিরে আসার পথে জলদস্যুদের কবলে পড়ে এফবি মায়ের দোয়া নামক ফিশিং ট্রলারটি। গত শনিবার রাতে কুতুবদিয়া চ্যানেলে পৌছলে ১৪/১৫জন অস্ত্রধারী ডাকাতদল ট্রলারটিতে হামলা চালায়। জলদস্যুরা জাল, মাছ, ডিজেল এবং মেশিনের মূল্যবান যন্ত্রাংশসহ প্রায় ১০ লাখ টাকার মালামাল লুট করে জলদস্যুরা ট্রলারটি সাগরে ডুবিয়ে দেয়। ঐ ট্রলারে পাঁচ জেলে ছিল। প্রায় ২৪ ঘন্টা পর ভাসমান অবস্থায় রবিবার ভোরে পাঁচ জেলেদের অন্য ট্রলার উদ্ধার করলে তারা উপকূলে ফিরে আসে।

ট্রলার মাঝি শফিউল আলম জানান, গত শুক্রবার দুপুরে কুতুবদিয়া উপকূলের উত্তর ধুরুং কায়ছারপাড়া এলাকা থেকে সাগরে মাছ ধরতে যায়। মাছ ধরে উপকূলে ফিরে আসার পথে জলদস্যুরা তাদের ট্রলারে হামলা চালিয়ে মালামাল লুট করে ট্রলারটি ডুবিয়ে দেয়। ঐ ট্রলারের পাঁচ জেলে সাগরে ২৪ ঘন্টা ভাসার পর অন্য ট্রলার তাদের উদ্ধার করে। উদ্ধারকৃত জেলেদের মধ্যে উত্তর ধুরুং এলাকার ছাবের আহমদের ছেলে রবিউল আলম (২৬) একই এলাকার সিরাজদ্দৌল্লাহ ছেলে ফোরকান (২১) অসুস্থ হয়ে পড়ায় তাদেরকে রবিবার ৬ সেপ্টেম্বর বিকালে কুতুবদিয়া হাসপাতালে ভর্তি করে। মালামাল লুট করার সময় জেলেরা কুতুবদিয়া এবং বাশঁখালী উপকূলের কয়েকজন জলদস্যুকে ছিনতে পারায় তাদেরকে প্রাণে হত্যার উদ্দেশ্যে ট্রলারটি ডুবিয়ে দেয়।

তবে এ রির্পোট লিখা পর্যন্ত ট্রলারটি মাঝি শফিউল আলম বাদি হয়ে কুতুবদিয়া থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে বলে স্থানীয় ইউপির সদস্য মোঃ ছলিম উল্লাহ নিশ্চিত করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •