মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু :

রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডে দীর্ঘ ৪০ বছর যাবৎ দখলীয় পাহাড় শ্রেণীর জমি সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে এক কৃষকের বাড়ীতে দিন দুপুরে ফিল্ম স্টাইলে হামলা করেছে বহিরাগত একদল সন্ত্রাসী।

ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টেম্বর) বেলা ১২ টায়। কামাল উদ্দিন ও স্থানীয়রা জানান দিন দুপুরে অপরিচিত ৩০-৪০ জনের একদল বহিরাগত সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা দেশি অস্ত্র,লম্বা রাম দা, হাতুড়ি, বল্লম নিয়ে কৃষক নাজির হোসেনের বাড়ীতে হামলা শুরু করে।

এসময় তারা বাড়ীঘর ভাংচুর করে ভিতরে ঢুকে প্রথমে তাদের মারধর করলে তারা প্রাণ রক্ষার্থে পালিয়ে যায়। এসময় সন্ত্রাসীরা বাড়ীর আসবাব পত্র,মালামাল ভাংচুর ও লুটপাট চালায়।

এই ঘটনার সংবাদ একজন প্রত্যক্ষদর্শী পুলিশের হেল্পলাইন ৯৯৯ তে কল দেয়। খবর পেয়ে রামু থানার একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে আসার খবরে দ্রুত গতিতে পালিয়ে যায় এ সন্ত্রাসী দলটি।

এ বিষয়ে আহত কৃষক মৃত সোলতান আহাম্মদের ছেলে নাজির হোসেন কান্না জড়িত কন্ঠে জানান আমার আপন ভাই খলিলুর রহমান, ইমাম হোসেন গং দের সাথে আমার দখলীয় পাহাড়ী বসত ভিটা নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল।

এ ব্যাপারে তারা আমাকে বেশ কয়েক বার হুমকি দিয়ে ছিল। অবশেষে তারা বহিরাগত একদল সন্ত্রাসীদের নিয়ে হামলা করে আমার বাড়িঘর ভাংচুর করে বাড়ী থেকে দুই মেয়ের সাড়ে ৪ ভরী স্বর্ণ, নগদ ৩৫ হাজার টাকা ও মালামল লুট করে নিয়ে যায়।

এ হামলায় আমি ও আমার স্ত্রী ফরিজা বেগম, কিশোরী মেয়ে হাসিনা আক্তার গুরুতর আহত হয়।বর্তমানে আমরা রামু সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছি। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায় আহত তিন জনের মধ্যে ফরিজা বেগম আশংকাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন আছেন।

স্থানীয় চেয়ারম্যান শামশুউদ্দিন আহাম্মদ পিন্স এধরনের ঘটনা খুবই ন্যাক্কারজনক দাবী করে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে ঘটনার সুষ্ঠ সমাধান দেওয়ার কথা বলেন।

এ বিষয়ে কৃষক নাজির হোসেন বাদী হয়ে রামু থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার সূত্রে জানা গেছে।

এ প্রতিবেদক ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করতে ঘটনাস্থলে আসা রামু থানার পুলিশের এসআই জয়নাল আবেদীন এর কাছে জানতে চাইলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন এবং বিস্তারিত জানান।

এদিকে রামু থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল খায়ের সাথে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলেন।

অপর দিকে অভিযুক্ত খলিল গংদের মুঠোফোনে একাদিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও সংযোগ না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •