ওসমান আবির :
টেকনাফে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির ৪২ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পৃথকভাবে উদযাপন করেছে উপজেলা বিএনপির দুটি গ্রুপ।নেতাদের মধ্যে পদ-পদবীর অভ্যন্তরীণ বিরোধের জের ধরে পৃথকভাবে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করেছে ।

মঙ্গলবার (১ সেপ্টেম্বর) উপজেলার পৃথক দুটি স্থানে কেক কেটে জমকালো অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দলের প্রতিষ্টাবার্ষিকী উদযাপন করেছে জেলা বিএনপির অর্থ সম্পাদক আব্দুল্লাহ গ্রুপের একটি অংশ ও এডভোকেট হাসান সিদ্দিকীর গ্রুপের একটি অংশ।

উপজেলা বিএনপির ব্যানারে হাসান সিদ্দিকীর  গ্রুপের একটি অংশ হ্নীলা ইউনিয়নের বাসস্ট্যান্ডের ইসলাম প্লাজা চত্ত্বরে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা, দোয়া-মাহফিল ও কেক কেটে কর্মসূচি পালন করেন।অন্যদিকে জেলা বিএনপির অর্থ সম্পাদক আব্দুল্লাহ গ্রুপের ব্যানারে পৌর শহরের আলো শপিং কমপ্লেক্স সেন্টারের একটি হলরুমে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কেক কেটে দোয়া-মাহফিল ও আলোচনা সভা পালন করেন।এতে জেলা বিএনপির বেশ কিছু নেতাকর্মী অংশগ্রহন করেন।

উপজেলা বিএনপির আলোচনা সভায় উপজেলা বিএনপির সভাপতি এডভোকেট হাসান সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী।এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি মোঃ হাশেম মেম্বার (সিআইপি),উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহাদাত হোসেন, সহ-সভাপতি নুরুল আমিন চৌধুরী, আলী আহমদ মেম্বার, আলী আকবর মেম্বার, আব্দুল হক মেম্বার, যুগ্নসম্পাদক মোহাম্মদ আলী মেম্বার, সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট সলিমুল মোস্তফা,উপজেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক নুরুল হুদা, বিএনপি নেতা দিলদার আহমদ মেম্বার, উপজেলা যুবদলের সভাপতি মোঃ কাইয়ুম, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক এইচএম ওসমান গণি, উপজেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক জুনায়েদ আলী চৌধুরী, উপজেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন, উপজেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক জলাল উদ্দিন, হোয়াইক্যং উত্তর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাজী ফিরোজ আহমদসহ প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে শাহজাহান চৌধুরী বলেন,মরহুম মেজর জিয়াউর রহমান এদেশের সাধারণ মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় এবং দেশের আমূল পরিবর্তনে উন্নয়নের লক্ষ্যে বিএনপি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। বর্তমান স্বৈরাচারী সরকারের কঠোর দুঃশাসনে এদেশের মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। এদেশের সূখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি ফিরিয়ে আনতে হলে বিএনপিকে ক্ষমতায় ফিরিয়ে আনার বিকল্প নেই। তাই তৃণমূলের সবাইকে ভেদাভেদ ভূলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে জাতীয়তাবাদী শক্তিকে ক্ষমতায় আনতে একযোগে কাজ করতে হবে।

অপরদিকে আব্দুল্লাহ গ্রুপের আলোচনা সভায় উপজেলার সদর ইউনিয়ন ছাত্রদলের সভাপতি আহমদ শফির সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির অর্থ সম্পাদক মোঃ আব্দুল্লাহ।এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি জাফর আলম, জেলা বিএনপির সদস্য সোলতান আহমদ বিএ, উপজেলা বিএনপির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক রাশেদুল করিম মার্কিন, সাবেক সহ-সভাপতি জালাল আহমদ, বাহারছড়া বিএনপির সাবেক সভাপতি আবদুল কাইয়ুম, টেকনাফ সদর বিএনপির সাধারন সম্পাদক নুর কামাল, উপজেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি নুর নবী, জেলা যুবদলের সদস্য ছেবর আলম, বদিউর রহমান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আবদুল আমিনসহ প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মোঃ আব্দুল্লাহ বলেন,নির্যাতিত ও অসহায় মানুষেরঅধিকার আদায়ের জন্য বিএনপির জম্ম।কিন্তু দলের দূর্দিনে যখন ঐক্যবদ্ধভাবে আন্দোলন সংগ্রাম চালিয়ে যাওয়ার কথা সেখানে টেকনাফ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীকে বিভক্ত করে রেখেছে একটি সুবিধাবাদী চক্র। যারা বিএনপির জন্য নিবেদিত, জেল-জুলুম, মামলা-হামলা সহ্য করে বিএনপির রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে তাদের বাদ দিয়ে উপজেলায় স্বজন ও পকেট কমিটি ঘোষনা করেছে জেলা বিএনপি।অনতিলম্বে এই কমিটি বাতিল পূর্বক সকলের সমন্বয়ে শক্তিশালী কমিটি ঘোষনার জন্য দলের উর্ধ্বতন কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

দলের নেতাকর্মীরা পৃথকভাবে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করায় দু:খ প্রকাশ করেন অনেক নেতা।তারা বলেন, এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে দীর্ঘদিনে। এমন অবস্থা চলতে থাকলে উপজেলায় দলের সাধারণ নেতাকর্মীদের মধ্যে অনাস্থা আরও বাড়বে।তাই দ্রুত এই অবস্থা নিরসনে দুই পক্ষকেই আহ্বান জানান দলের সিনিয়র নেতারা।

এদিকে জেলা বিএনপির একাধিক নেতা বলেন, প্রতিষ্ঠার পর থেকে বিএনপি এখন সবচেয়ে কঠিন সময় পার করছে।আন্দোলনে সুবিধা করতে না পারা,নতুন-পুরোনো জোটে অসন্তোষ, অঙ্গসংগঠনগুলোয় অন্তর্দ্বন্দ্ব এবং দলের নেতাদের মত পার্থক্য প্রায়ই সামনে চলে আসছে। সব মিলিয়ে বিএনপি অনেকটাই কোণঠাসা।তাই কেন্দ্রীয় নেতাদের এ ক্ষেত্রে দায়িত্বশীল আচারণ এবং উদ্যোগী না হলে সংকট আরো বাড়বে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •