এম.এ আজিজ রাসেল :

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেয়র মুজিবুর রহমান বলেছেন, ‘ জাইকা প্রণীত মাস্টার প্ল্যান অনুযায়ী কক্সবাজারকে সাজানো হবে। কক্সবাজার পৌরসভায় উন্নয়নের জন্য ৮০০ কোটি টাকার কাজ রয়েছে। তার মধ্যে চলমান রয়েছে ২০০ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ। এসব কাজ বাস্তবায়ন হলে বদলে যাবে পর্যটন নগরীর জরাজীর্ণ চেহারা।’
তিনি বলেন, ‘বৃষ্টি কমে গেছে। প্রাথমিকভাবে সড়ক-উপসড়কের সংস্কার করা হবে। আগামী ৬ মাসের মধ্যে সকল সড়কের সংস্কার কাজ চলবে পুরোদমে।’
শুক্রবার রাত ৮টায় কক্সবাজার পৌরসভার ১২ নং ওয়ার্ডের কলাতলীর সৈকত পাড়ায় শতভাগ জনসেবা নিশ্চিতে কক্সবাজারে দেশের প্রথম ‘কাউন্সিলর কার্যালয়’ উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
মেয়র মুজিবুর রহমান আরও বলেন, ‘বাংলাদেশের মধ্যে এই প্রথম পর্যটন নগরী কক্সবাজারে ‘কাউন্সিলর কার্যালয়’ করা হয়েছে। এটি পৌরবাসীর জন্য গৌরবের। এখন থেকে সেবা নেয়ার জন্য কাউন্সিলকে খুঁজতে হবে না। ঘরে ঘরে নাগরিক সেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে এই ‘কাউন্সিলর কার্যালয়’ করা হয়েছে। পৌরবাসীর কষ্ট লাঘবে কাউন্সিলর সার্বক্ষণিক এখানে সেবা দেবে। পর্যায়ক্রমে বাকি ১১টি ওয়ার্ডেও ‘কাউন্সিলর কার্যালয়’ স্থাপন করা হবে।’

পৌর মেয়র বলেন, ‘পৌরবাসীকে পানি নিয়ে আর কষ্ট পেতে হবে না। প্রস্তুত হয়েছে ওয়াটার ট্রিটম্যান্ট প্লান্ট। আগামী ৬ মাসের মধ্যে বিশুদ্ধ পানি মিলবে। ওই সময় বাথরুমের পানিও খাওয়া যাবে। তিনি বলেন, ‘নতুবা উন্নয়ন কাজ করবো আর না পারলে মেয়রের পদ ছেড়ে চলে যাবো। পৌর শহরকে সাজাতে তিনি সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।’

‘কাউন্সিলর কার্যালয়’ প্রসঙ্গে কক্সবাজার পৌরসভার ১২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কাজী মোরশেদ আহম্মদ বাবু বলেন, দীর্ঘ দুই বছর ধরে এই ওয়ার্ডের মানুষের সুখ-দুঃখে পাশে আছি। ফাতেরঘোনা, আদর্শগ্রাম, উত্তর লাইট হাউজ, বাঘঘোনাসহ কয়েকটি এলকায় ৫টি উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন হবে। তারমধ্যে আদর্শগ্রাম ও ফাতের ঘোনায় ২ কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। পৌর মেয়রের পরামর্শ ও আন্তরিকতায় এই ওয়ার্ডকে আধুনিকভাবে সাজানো হবে।’

তিনি বলেন, পাহাড়কাটা ও সড়ক-জনপথের নির্মাণ কাজের জন্য জলাবদ্ধতাসহ ড্রেইন ভরাট হয়ে যাচ্ছে। এখানকার আশপাশের পাহাড়ে সবুজ বনায়ন করা হলে এই চিত্র থাকবে না।’

কক্সবাজার সৈকত পাড়া বহুমুখী সমবায় সমিতি লিঃ এর সভাপতি শরাফত উল্লাহ সিকদার বাবুলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কলাতলী সমাজ কমিটির সভাপতি মাস্টার মফিজুর রহমান, সৈকতপাড়া সমাজ কমিটির সাবেক সভাপতি আলহাজ্ব জেবর মুল্লুক, হোটেল মোটেল গেষ্ট হাউজ মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব আবুল কাশেম সিকদার, সৈকত পাড়া সমাজ কমিটির সাধারণ সম্পাদক কামরুল ইসলাম, বৃহত্তর লাইট হাউজ পাড়া সমাজ কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবদুল মান্নান ও আর্দশ প্রাম সমাজ কমিটি সভাপতি নাছির উদ্দীন।

জেলা ছাত্রলীগের সহ সম্পাদক মো. মনসুর উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সুলতান, খুরুশকুল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন, কলাতলী দাখিল মাদ্রাসার পরিচালনা কমিটির সভাপতি লাইসমেন নুরুল ইসলাম, কলাতলী সমাজ কমিটির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. শামসুল আলম, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ সভাপতি নুরুল আমিন, ১২ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক খোরশেদ আলম, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, সৈকতপাড়া সমাজ কমিটির কার্যনির্বাহী সদস্য আহমদ মিয়া, লাইট হাউজ আদর্শ সমাজ কমিটির সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াছ মুন্সি, লাইট হাউজপাড়া সমাজ কমিটির সাবেক সভাপতি জয়নাল আবেদীন, ফাতের ঘোনা সমাজ কমিটির সভাপতি আবুল কাশেম, সাধারণ সম্পাদক মো. আলম, ফাতের ঘোনা ইউনিট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোরশেদ আলম, আর্দশ গ্রাম সমাজ কমিটির সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন ও আর্দশ গ্রাম ইউনিট আওয়ামী লীগের সভাপতি মোবারক হোসেন।
আরও উপস্থিত ছিলেন, সোহেল আরমান, হাকিম আলী, আবদুল গফুর, মাসুদ রানা, সেলিম, মনির ১২ নং ওয়ার্ড (উত্তর) ছাত্রলীগের আহবায়ক নাফিক ইকবাল।
এর আগে অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত হাফেজ নজরুল ইসলাম। ১২ নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন সমাজ প্রতিনিধির পক্ষ থেকে প্রধান অতিথিকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •