ওসমান আবির :
টেকনাফ উপজেলার গৃহহীন পরিবারের জন্য গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ (টিআর) প্রকল্পের আওতায় ২৪টি দুর্যোগ সহনীয় বসত ঘর তৈরি করে দিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়।

চলতি অর্থবছরে এই প্রকল্পের আওতায় উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে এসব বাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে। এর মধ্যে উপজেলার সদরে ১০টি, হ্নীলায় ৯টি, সাবরাংয়ে ৩টি,বাহাড়ছড়ায় ১টি এবং হোয়াইক্যংয়ে ১টি বসত ঘর নির্মাণ করে দেয়া হয়েছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের তৈরি করে দেওয়া এসব সেমিপাকা প্রতিটি বসত ঘরে থাকছে ২টি কক্ষ, ১টি বারান্দা, ১টি রান্না ঘর ও ১ টি শৌচাগার। প্রতিটি বসত ঘর নির্মাণে ব্যয় করা হয়েছে ২ লাখ ৯৯ হাজার ৮৬০ টাকা। এ সব বসত ঘর নির্মাণে মোট ব্যয় করা হয়েছে ৭১ লাখ ৯৬ হাজার ৬৪০ টাকা।

সাবরাং ইউনিয়নের উপকারভোগী ফাতেমা খাতুন বলেন, ‘পাকা ঘরের আশা বাস্তবে নয় স্বপ্নেও করিনি। সে আশা পূরণ হয়েছে।সরকার পরিবার নিয়ে মাথা গোজার একটি সুন্দর ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরে হস্তান্তর করা বসত ঘরের সুবিধাভোগী উপজেলার সদর ইউনিয়নের ডেইল পাড়া গ্রামের বাসিন্দা রুপ্না শীল বলেন, ‘জীবনে কখনো ভালো ঘরে থাকতে পারিনি। প্রধানমন্ত্রীর দয়ায় পাকা ঘর পেয়েছি। এ ঘরে বসবাস করছি। আমার সন্তানরাও ভবিষ্যতে এ ঘরে বাস করবে।’

টেকনাফ উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সিফাত বিন রহমান জানান, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী চলতি অর্থ বছরে টি আর প্রকল্পের আওতায় উপজেলার ৫টি ইউনিয়নে ২৪টি গৃহহীন পরিবারের জন্য দুর্যোগ সহনীয় বাস গৃহ নির্মাণ করে দেওয়া হয়েছে।গৃহহীন পরিবারের জন্য এটি সরকারের একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •