২৬আগষ্ট জাতীয় দৈনিক ইত্তেফাক পত্রিকা অনলাইন ও বিভিন্ন অনলাইন সংবাদ মাধ্যম এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত “ওসি প্রদীপসহ ২৩জনের বিরুদ্ধে আরো একটি ক্রসফায়ারে হত্যার অভিযোগ’’ শীর্ষক সংবাদটি আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। এই সংবাদটি খতিয়ে দেখে উক্ত মামলায় আমাদের প্রতি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার গভীর ষড়যন্ত্র সম্পর্কে অবহিত হয়েছি।

এই বিষয়ে আমরা সর্বস্তরের জনসাধারণের অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে, এই খবর পাওয়ার পর আমরা উক্ত মামলার বাদীর বাড়িতে গিয়ে স্বশরীরে স্বাক্ষাত করি। মামলার বাদী নুরুল হোছাইন বলেন আমি তো আপনাদের চিনিনা এবং জানিনা। তাহলে এই মামলায় আমাদের ২১নং এবং ২২নং আসামী কেন করা হল জানতে চাইলে তিনি বলেন, হ্নীলা হতে ৬/৭জন লোক এসে তথ্য দেন যে আমার মরহুম ভাইকে আপনাদের সহায়তায় ধাওয়া করে হ্নীলা ষ্টেশন হতে আটক করা হয় এবং পরে পুলিশ ক্রসফায়ার নাটক সাজায়। এই কারণে আপনাদের আসামী করেছি। কিন্তু ঐ ঘটনার দিন আমরা উপস্থিত ছিলাম না বরং তাকে প্রকাশ্য দিবালোকে আটকের ঘটনায় কারা কারা উপস্থিত ছিল তা সকলেই অবগত রয়েছেন। উক্ত মামলা সংশ্লিষ্ট আসামী পুলিশের সাথে আমাদের কোন ধরনের পরিচিতি ও সম্পর্ক নেই।

সুতরাং উক্ত ঘটনার সময় আমরা উপস্থিত না থাকা সত্বেও বিশেষ মহলের প্ররোচনায় রাজনৈতিক দ্বন্দের স্বার্থ হাসিলের জন্য উক্ত এজাহারে আসামী করে হয়রানির পাশাপাশি সামাজিক ও ব্যক্তিগতভাবে হেয়পন্ন করার অপচেষ্টা চালিয়েছে। আমরা এসব চক্রান্তের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে দলীয় নেতাকর্মী, রাজনৈতিক শুভাকাংখীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহবান জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী
নুরুল আলম নুরু
সভাপতি
আনোয়ার হোসেন
সাধারণ সম্পাদক
বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ, হ্নীলা ইউনিয়ন শাখা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •