চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:

চট্টগ্রামের পটিয়ায উপজেলায় আট বছরের এক শিশু কন্যাকে ব্লেড দিয়ে এঁকে সৎ মায়ের বিরুদ্ধে অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

২৫ আগষ্ট (মঙ্গলবার) দুপুরে শিশু মায়শা আকতারকে পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে চিকিৎসা নিয়েছে।

সে উপজেলার শোভনদন্ডী ইউনিয়নের রশিদাবাদ গ্রামের ২নং ওয়ার্ডের রিক্সাচালক নাজিম উদ্দিনের কন্যা। সৎ মা শিশুটির দুই হাত, পা ও শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে ব্লেড দিয়ে এঁকে নির্যাতন করে। সৎ মা নিশু আকতারের বিরুদ্ধে স্বামী নাজিম উদ্দিন বাদী হয়ে তার স্ত্রী ও শ্বাশুড়ির বিরুদ্ধে পটিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

জানা গেছে, উপজেলার শোভনদন্ডী ইউনিয়নের রশিদাবাদ গ্রামের রিক্সচালক নাজিম উদ্দিনের প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর পার্শ্ববর্তী করিম সওদাগরের কন্যা নিশু আকতারকে বিয়ে করে।

নাজিমের প্রথম সংসারে এক কন্যা ও এক পুত্র সন্তান রয়েছে। দ্বিতীয় সংসারে নয় মাসের ১ কন্যা সন্তান রয়েছে। দ্বিতীয় সংসারের নয় মাসের শিশুকে দেখাশুনার ইস্যু নিয়ে সৎ মা প্রায় সময় মায়শাকে নির্যাতন করে। সারা শরীরে ব্লেড দিয়ে এঁকে, হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করে।

তাছাড়া দাঁত দিয়ে কামড়ে আঘাত করে। রিক্সা চালক নাজিম উদ্দিন জানিয়েছেন, তার দ্বিতীয় স্ত্রী নিশু প্রথম সংসারের কন্যা মায়শাকে প্রায় সময় নির্যাতন করে থাকে। সৎ মা ব্লেড দিয়ে এঁকে, হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখম করলে স্থানীয় লোকজনসহ মায়শাকে উদ্ধার করে পটিয়া হাসপাতালে ভর্তি করে।

পটিয়া থানার ডিউটি অফিসার ও উপ-পরিদর্শক মোছাম্মৎ তসলিমা জানিয়েছেন, শিশুকে ব্লেড দিয়ে এঁকে ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে জখমের ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের হয়েছে। অভিযোগটি খতিয়ে দেখে সৎ মার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •