প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
কৃষি, পর্যটন, মৎস্য ও লবণ শিল্পের অনন্য উপাদানে সমৃদ্ধ জনপদ কক্সবাজার। এ ছাড়াও নান্দনিক রুপে বিস্তার লাভ করেছে, স্থানীয় কুটির শিল্প। কিন্তু এই শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট উদ্যোক্তারা সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে থেকে গুণগত প্রশিক্ষণ, অর্থনৈতিক সহযোগিতা কিংবা বাজারজাতকরণের সাপোর্ট সহ কোন ধরনের সাপোর্ট পায় না। ফলে অনেক কষ্ট করে তাদের উদ্যোগকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। এসব উদ্যোক্তা যদি কোন ধরনের পৃষ্ঠপোষকতা পায় তাহলে তাদের কাজকে সম্প্রসারিত করার মাধ্যমে দেশের বেকারত্ব দূরীকরণে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে পারবে। ইতিমধ্যে প্রত্যেকটা উদ্যোক্তার কার্যক্রমের সাথে সর্বনিম্ন পাঁচজন থেকে সর্বাধিক ৫০ জনের কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। এর মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী এসডিজি অর্জনে অন্যতম ভূমিকা রাখতে পারে বলে আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস।

 সোমবার বিকালে রামু সংসদীয় আসনের এমপি সাইমুম সরওয়ার কমলের বাসভবনের বৈঠকখানায় অনুষ্ঠিত  আড্ডায় উক্ত অভিমত ব্যক্ত করেন । আড্ডার  সঞ্চালনা করেন কক্সবাজার ই-কমার্স অ্যান্ড এন্টারপ্রিনিয়স ফোরামস এফ এর সভাপতি বেলাল আবেদীন ভুট্টো।

এতে  উপস্থিত ছিলেন সেফ এর অন্যতম সংগঠক, ডিভা অরগানাইজেশনের নির্বাহি নওশাভা সিয়াম, শেফ এর প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ট্যুরিজম উদ্যোক্তা জিকু পাল, প্লাস্টিক রিসাইকেলিং উদ্যোক্তা সাকির আলম, বেবি ফুড নিয়ে কাজ করা উদ্যোক্তা ফারিয়া আহমেদ ঝিলিক, ফ্যাশন এন্ড ক্লথ নিয়ে কাজ করা উদ্যোক্তা চন্দ্রিমা শর্মা নিশি, হস্তশিল্প নিয়ে কাজ করা উদ্যোক্তা, আফরোজা খানম, তাসমিয়া আক্তার, শীতল পাটি নিয়ে কাজ করা উদ্যোক্তা কান্তা মনি, বস্ত্র শিল্প নিয়ে কাজ করা উদ্যোক্তা সামিয়া সারিকা শশী, হোম মেড ফুড সার্ভিস দিয়ে কাজ করা উদ্যোক্তা রওনাক আরা খানম।

তাছাড়া উদ্যোক্তা হিসেবে, নারীরা এগিয়ে আসার মাধ্যমে সমাজের অর্থনীতি অগ্রগতি ত্বরান্বিত হয়েছে বলে আড্ডায় সকলে অভিমত প্রকাশ করেন। উদ্যোক্তাদের উন্নয়নের লক্ষ্যে দক্ষতা ও ব্যবস্থাপনা প্রশিক্ষণ, আর্থিক সহায়তা সহ উন্নয়নমুখী কার্যক্রম নেয়ার জন্য সরকার ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানানো হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •