ইমাম খাইরঃ
চকরিয়ায় গরু চুরির অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতার হয়ে কারান্তরীন থাকা মা ও দুই মেয়ের জামিন দিয়েছে আদালত।

সোমবার (২৪ আগস্ট) দুপুরে চকরিয়ার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের বিচারক রাজিব কুমার দেব তাদের পরবর্তী ধার্য্য তারিখ পর্যন্ত   জামিন মঞ্জুর করেন।

জামিন প্রাপ্তরা হলেন- চট্টগ্রামের পটিয়া উপজেলার শান্তিরহাট কুসুমপুর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের আবুল কালামের স্ত্রী পারভীন আক্তার (৫৫), মেয়ে সেলিনা আক্তার (২৮) ও রোজিনা আক্তার (২৫)।

জামিনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চকরিয়া আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ওমর ফারুক।

তিনি জানান, আদালতের শুনানি শেষে মা-মেয়েসহ তিনজনকে জামিন দিলেও দুই আসামীর জামিন হয় নি।

তারা হলেন- পারভীন আক্তারের ছেলে মোহাম্মদ আরমান (৩০) ও পেকুয়া উপজেলার বারবাকিয়া ইউনিয়নের মোহাম্মদ ছুট্টু (৩৮)।

শুক্রবার (২১ আগস্ট) দুপুরে হারবাংয়ের দক্ষিণ পহরচাঁদা এলাকায় এ ঘটনা ঘটলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ঘটনার ছবি প্রকাশের পর এটি শনিবার সবখানে জানাজানি হয়।

এ ঘটনায় রবিবার (২৩ আগস্ট) স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে মামলা নেয় চকরিয়ার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত।

মামলাটি চকরিয়া সার্কেলের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপারকে ৭ কার্য দিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য নির্দেশনা দিয়েছেন বিচারক রাজিব কুমার দেব।

একই ঘটনায় কক্সবাজার জেলা প্রশাসক ও চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয় হতে পৃথক দুইটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসনের কমিটিতে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক (উপ-সচিব) শ্রাবস্তী রায়কে প্রধান করা হয়েছে।

গত ২১আগষ্ট হারবাং ইউনিয়ন পরিষদে ঘটনার পর ২৩ আগষ্ট দিবাগত রাত থেকে মা-মেয়ে ছেলেকে নিযার্তনের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এরপর স্থানীয় প্রশাসনের টনক নড়ে।

প্রধান অভিযুক্ত ইউপি চেয়ারম্যান মিরানুল ইসলাম মিরান মুঠোফোন বন্ধ করে আত্মগোপনে রয়েছেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছে।

আসামীদের আইনী সহায়তা প্রদান করছে কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •