রাজু দাশ ,চকরিয়া :
চকরিয়ায় বিশ্বখাদ্য কর্মসূচী (ডাব্লিউএফপি)র অর্থায়নে খাদ্য সহায়তার অংশ হিসাবে বেসরকারী সংস্থা এসএআরপিভি কর্তৃক দেওয়া তৃতীয় দফায় উপজেলার হারবাং, বরইতলী ও ডুলাহাজারা ইউনিয়নে অসহায় দারিদ্র্য মানুষের মাঝে ১ বস্তা(৩০ কেজি) করে চাউল বিতরণ করা হয়েছে।

বুধবার (১৯ আগষ্ট) দুপুরে তালিকাভুক্ত ২ হাজার ৫ শত ৬০ জন উপকারভোগীর মাঝে
কক্সবাজার-১ (চকরিয়া পেকুয়া)’র এমপি জাফর আলম বিএ(অনার্স)এমএ’র সার্বিক সহযোগিতায় এই চাউল বিতরণ করা হয়েছে।

চকরিয়া উপজেলার হারবাং, বরইতলী ও ডুলাহাজারা ইউনিয়নে এ চাল বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন, এসএআরপিভি’র চট্টগ্রামের আঞ্চলিক পরিচালক কাজী মাকসুদুল আলম মুহিত, হারবাংয়ের ইউপি চেয়ারম্যান মিনারুল ইসলাম মিনার, বরইতলী ইউপি জালাল আহমদ সিকদার, ডুলাহাজারা ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল আমিন, পেকুয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহসভাপতি সাংবাদিক জহিরুল ইসলাম, এসএআরপিভি’র ত্রাণ সমন্বয়ক ইয়াসমিন সোলতানা, এসএআরপিভি’র আক্তার কামাল মিরাজ, এসএআরপিভি’র ডা. আবদুল মালেক, জিয়াউর রহিম, স্থানীয় রাজনৈতিক ও সামাজিক নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য গত জুন মাসে চকরিয়ায় ১৬ হাজার ৫শত পরিবারের মাঝে প্রথম দফায় দেওয়া হয়েছে পরিবার প্রতি ৩০ কেজি করে ভাল মানের চাল ও ৫ কেজি হাই এনার্জি বিস্কুট। ওই একই সময়ে পেকুয়ায় ৭ ইউনিয়নে ৫ হাজার ৫শত পরিবারের মাঝে দেওয়া হয়েছে ৩০ কেজি করে ভাল মানের চাল। গত জুলাই মাসে চকরিয়া ও পেকুয়ায় এই একই পরিমান উপকারভোগীর মাঝে নগদ ৪ হাজার ৫শত টাকা করে নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে।
এসএআরপিভি’র চট্টগ্রামের আঞ্চলিক পরিচালক কাজী মাকসুদুল আলম মুহিত জানান; এ কর্মসুচীর আওতায় করোনা সংকটে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় নিন্ম আয়ের চকরিয়া উপজেলার ১৬ হাজার ৫শত পরিবারকে এ খাদ্য সহায়তার অংশ হিসাবে জুন ও জুলাই মাসে দুই দফায় যথাক্রমে ৩০ কেজি করে চাল, ৫ কেজি করে হাই এনার্জি বিস্কুট, ৪ হাজার ৫ শত টাকা নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে। ওই একই সময়ে পেকুয়ায় ৭ ইউনিয়নে ৫ হাজার ৫শত পরিবারের মাঝে ৩০ কেজি করে চাল ও নগদ ৪ হাজার ৫শত টাকা বিতরণ করা হয়েছে। আগষ্ট মাসে চকরিয়া ও পেকুয়ায় ২২ হাজার পরিবারের মাঝে ৩০ কেজি করে চাল বিতরণের(চলমান) মাধ্যমে বিশ্বখাদ্য কর্মসূচী (ডাব্লিউএফপি)অর্থায়নে খাদ্য সহায়তার কার্যক্রম কর্মসূচী শেষ হয়ে যাচ্ছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •