ডেস্ক নিউজ:
নিজের এবং পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও মানহানিকর সংবাদ প্রকাশের অভিযোগে দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক এএমএম বাহাউদ্দীনসহ দুজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন সাবেক নৌপরিবহন মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শাজাহান খান।

রবিবার ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আবু সাঈদের আদালতে শাজাহান খান নিজেই এই মামলা দায়ের করেন।

মামলার অপর আসামি হলেন-কাদেরিয়া পাবলিকেশন্স অ্যান্ড প্রোডাক্টস লিমিটেডের পরিচালক আব্দুল কাদের।

বিচারক বাদীর জবানবন্দি গ্রহণের পর মামলাটি আদেশের জন্য রেখেছেন। তাদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ১০৯/৫০১/৫০২/৩৪ ধারায় মানহানির অভিযোগ আনা হয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শাজাহান খানের মেয়ে ঐশী খানের করোনা সনদ নিয়ে বিদেশে যেতে গিয়ে নেগেটিভ সনদ অনলাইনে পজিটিভ দেখা যায়। এটা স্বাস্থ্য বিভাগের সংশ্লিষ্ট শাখার ভুল ছিল। ঐশী খানের আপত্তির পর ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ল্যাবরেটারি অ্যান্ড রেফারেন্স সেন্টারের পরিচালক অধ্যাপত ডা. আবুল খায়ের এর জন্য ক্ষমাও চান।

গত ২৭ জুলাই ক্ষমা চাওয়ার সংবাদ প্রকাশের পরদিন একই বিষয়ে মানহানিকর সংবাদ প্রকাশ করে পত্রিকাটি। যার শিরোনাম ছিল, ‘শাজাহান খানের মেয়ের করোনা সনদ জালিয়াতি’৷ এ সংবাদকে মিথ্যা, গুজব, মানহানিকর অভিহিত করে আসামিদের বিরুদ্ধে মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা চাওয়া হয়।

গত ২৬ জুলাই সকালে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের বিজি-০০১ ফ্লাইটে লন্ডন যাওয়ার জন্য হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে যান ঐশী খান। ইমিগ্রেশনে তার সঙ্গে থাকা করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট চেক করেন ইমিগ্রেশন কর্মকর্তা। ইমিগ্রেশন পুলিশ অনলাইনে করোনা সার্টিফিকেট চেক করলে সেটি পজিটিভ দেখায়। সঙ্গে সঙ্গেই তাকে বিমানবন্দর থেকে ফেরত পাঠানো হয়। তবে পরে জানা যায়, কর্তৃপক্ষের ভুলের কারণেই এমনটা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •