cbn  

জেলা প্রশাসনের শোক দিবসের তাৎপর্য নিয়ে ভার্চুয়াল সভা


সিবিএন রিপোর্ট :

কক্সবাজারে জেলা প্রশাসন আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের ভার্চুয়াল তাৎপর্য সভায় বক্তারা বলেছেন, ১৯৫৮ সাল থেকে ১৯৭৫ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু অনেকবার এসেছেন কক্সবাজারে। কক্সবাজারের ইনানী থেকে মহেশখালীর সোনাদিয়া দ্বীপে পর্যন্ত জাতির জনকের রয়েছে অনেক স্মৃতিময় এলাকা। জাতির জনকের এসব স্মৃতিময় এলাকা সংরক্ষণ সহ কক্সবাজার শহরের গেইটওয়ে হিসাবে পরিচিত কলাতলী গোল চত্বরে বঙ্গবন্ধুর একটি ম্যুরাল স্থাপনের উপর তাগিদ দেওয়া হয়েছে।

শনিবার রাতে অনুষ্টিত এই ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে অনুষ্টিত সভায় বক্তারা বলেন, আগামী প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে গড়ে তুলতে হবে। দেশ প্রেমিক সু-নাগরিক গড়তে হলে বঙ্গবন্ধুকে চিনতে হবে, বঙ্গবন্ধুকে জানতে হবে। তাই বঙ্গবন্ধুর আদর্শে সবাইকে গড়ে উঠতে হবে।

বক্তারা গুরুত্বারোপ করে আরো বলেন, দেশ স্ব-নির্ভর করতে এবং বিশ্ব-উন্নয়নের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে সবাইকে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে ও মুক্তিযদ্ধেও চেতনায় কাজ করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে সবাইকে স্ব-স্ব ক্ষেত্রে উজ্জ্বল ভূমিকা রাখতে হবে বলেও বক্তারা বলেন।

বক্তারা বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি বিজড়িত কক্সবাজারের পর্যটন গেইট ওয়ে নামে খ্যাত কলাতলী চত্বরে অবিলম্বে বঙ্গবন্ধুর একটি ম্যুরাল স্থাপনের জন্য জোর দাবি উত্থাপন করেন। এই দাবির প্রেক্ষিতে বক্তাদেও অনেকেই ঐক্যমত পোষন করেন এবং দ্রুত বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপনের জন্য কার্যক্রম এগিয়ে নেয়ার তাগিদ দেন। সেই সাথে ইনানী চেনছড়ির বঙ্গবন্ধুর স্মৃতি ফলকটির কাজে গতি বাড়ানোর দাবি জানান বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ শাহজাহান।

জেলা প্রশাসনের জাতীয় শোক দিবসের তাৎপর্য সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি ও বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন আশেক উল্লাহ রফিক এমপি ও জাফর আলম এমপি।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে আরো ব্কতব্য রাখেন পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তাফা, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল (অবঃ) ফোরকান আহমদ, ট্যুরিস্ট পুলিশের এসপি জিল্লুর রহমান, কক্সবাজার সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পার্থ সারথী, জেলা জাসদের সভাপতি নঈমুল হক চৌধুরী টুটুল, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা রেজাউল করিম, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট রনজিত দাশ, পৌর-আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ নজিবুল ইসলাম, সিনিয়র সাংবাদিক তোফায়েল আহমদ, কক্সবাজার সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ আবু তাহের ও সাধারণ সম্পাদক জাহেদ সরওয়ার সোহেল।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •