cbn  

অনলাইন ডেস্ক:
আজ ১৫ আগস্ট, ভারতের স্বাধীনতা দিবস। বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে ভারতজুড়ে পালিত হচ্ছে দেশটির ৭৪তম স্বাধীনতা দিবস।

কিন্তু কেন ভারতের স্বাধীনতা দিবস ১৫ আগস্ট পালন করা হয়? কেন এই দিনটিকে বেছে নেওয়া হয়েছিল মুক্তির দিবস হিসেবে? জেনে নিন কিছু তথ্য।

লর্ড মাউন্টব্যাটেনকে ১৯৪৭ সালের ৩০ জুন ক্ষমতা হস্তান্তরের আদেশ দেয় ব্রিটিশ পার্লামেন্ট। কিন্তু সেই ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে হতে আগস্ট মাস পর্যন্ত সময় লেগে যায়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, তৎকালীন ভারতীয় রাজনীতিবিদ সি রাজাগোপালাচারি লেখেন- যদি ১৯৪৮ সালের জুন মাস পর্যন্ত অপেক্ষা করার কোনও অর্থ নেই। এই চাপে লর্ড মাউন্টব্যাটেন স্বাধীনতার সময়কে এগিয়ে নিয়ে আসেন ১৯৪৭ সালের আগস্টের দিকে।

সময়টা এগিয়ে আনার ক্ষেত্রে মাউন্টব্যাটেনের যুক্তি ছিল তিনি দাঙ্গা বা রক্তপাত চান না। অবশেষে দুই সপ্তাহের মধ্যে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভারতীয় স্বাধীনতা আইন ১৯৪৭ পাস হয়। ওই আইনে ১৫ আগস্টকেই ধরা হয় ব্রিটিশ ভারতের শেষ দিন।

ল্যারি কলিন্স ও ডমিনিক লা পিয়েরের লেখা ফ্রিডম অ্যাট মিডনাইটে বলা হয়েছে মাউন্টব্যাটেন নিজেই শুধু স্বাধীনতার তারিখ স্থির করেছিলেন। তবে তাকে এই তারিখের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে, সেভাবে কোনও সুস্পষ্ট জবাব দেননি। বলেছিলেন আগষ্ট থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে এই তারিখ ঘোষণা করা হবে। তাহলে ১৫ আগস্ট কেন বেছে নিয়েছিলেন তিনি? জানতে চাওয়া হলে তিনি পরে জবাব দিয়েছিলেন ১৫ তারিখ বাছার কারণ সেদিন জাপানের আত্মসমর্পণের দ্বিতীয় বার্ষিকী।

প্রসঙ্গত, ১৯৪৫ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষ হয়। অক্ষশক্তির কাছে আত্মসমর্পণ করে জাপান। ওই বছর জাপানের সম্রাট হিরোহিতো এক বক্তৃতার মাধ্যমে মিত্রবাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণের কথা জানান। মাউন্টব্যাটেন ছিলেন তখন দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের প্রধান সেনাপতি। তিনি তৎকালীন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইনস্টন চার্চিলের সঙ্গে বসে শুনেছিলেন ওই ঘোষণা। সেদিনই ছিল ১৫ আগস্ট!

১৯২৯ সালের দিকে কংগ্রেসের সভাপতি থাকার সময় ‘পূর্ণ স্বরাজে’র ডাক দেন জওহরলাল নেহরু। তখন ২৬ জানুয়ারিকে স্বাধীনতা দিবস হিসেবে পছন্দ করা হয়। ১৯৩০ থেকে ১৯৪৬ পর্যন্ত কংগ্রেস দিনটিকে স্বাধীনতা দিবস হিসেবে পালন করে। তবে তা ভারতে বর্তমানে প্রজাতন্ত্র দিবস হিসেবে পালিত হয়। ১৯৫০ সালের ওই দিনে স্বাধীন ভারতের প্রথম সংবিধান কার্যকর হয়। সূত্র: কলকাতা২৪

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •