সিবিএন ডেস্ক :

সম্প্রতিক করোনাকালীন সময়ের ব্যবসা-বাণিজ্যের স্থবিরতার কারণে, ব্যবসায়ী/মাকের্টের ভাড়াটিয়াদের ক্ষয়ক্ষতি বিবেচনা করে এবং লকডাউনকালে যে সমস্ত দোকান দীর্ঘদিন বন্ধ ছিল বিশেষ বিবেচনায় মার্কেট/শপিং কমপ্লেক্স সমূহের দোকানের ১ (এক) মাসের ভাড়া মওকুফ করার সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মাকের্ট মালিকবৃন্দ। এখানে উল্লেখ্য যে, করোনাকালীন সময়ে যেসব মাকের্ট/শপিং কমপ্লেক্সে দোকান বা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান (নিত্য প্রয়োজনীয় ব্যবসা প্রতিষ্টান সমূহ) চালু ছিল, সেসব দোকান বা প্রতিষ্ঠান এই ভাড়া মওকুফ এর আওতায় আসবে না, শুধুমাত্র বন্ধ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানসমূহ এই মওকুফের আওতায় আসবে।

কক্সবাজার মার্কেট ওর্নাস এসোসিয়েশন এর এক জরুরী সভায় উপরোক্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। গত ১১ আগস্ট/২০খ্রিঃ (মঙ্গলবার), বিকেলে, কক্সবাজার চেম্বার এর সম্মেলনকক্ষে এসোসিয়েশনের সভাপতি ও সৈকত টাওয়ার এর স্বত্বাধিকারী মাহবুবর রহমানের সভাপতিত্বে এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় এসোসিয়েশনের সদস্যদের সর্বসম্মত সিদ্ধান্তক্রমে উক্ত প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়। এছাড়াও করোনাকালীন সহায়তা হিসেবে সরকারের নিকট আয়কর/ভ্যাট এবং পৌরসভার মেয়রের নিকট ভবনসমূহের পৌরকর ও ট্রেডলাইসেন্স ফি হ্রাস করার দাবী জানানোসহ যে সমন্ত মাকের্টের ব্যাংক ঋণ রয়েছে তাদের সুদ মওকুফ এবং অন্যান্য সার্ভিস চার্জ সমূহ মওকুফের প্রস্তাব গৃহীত হয়।

সভায় বিগত রমজানে (লকডাউন চলাকালীন সময়ে) এসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে পৌরসভার সকল মাকের্ট/শপিং কমপ্লেক্সের প্রায় ১৫০ জন কেয়ার টেকার/দারোয়ানদের মধ্যে ঈদ-সামগ্রী প্রদান করা হয়। উক্ত ঈদ-সামগ্রী আয়োজনে সহযোগিতা প্রদানকারী জেলার কৃতি সন্তান ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জনাব হেলালুদ্দিন আহমদ, কক্সবাজার পৌরসভার সম্মানিত মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জনাব মুজিবুর রহমানসহ এসোসিয়েশনের সদস্যদের (যারা আর্থিক সহযোগিতা প্রদান করেছেন) প্রতি অদ্যকার সভায় কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানিয়ে প্রস্তাব গৃহিত হয়।

সভায় এসোসিয়েশনের সদস্যদের স্ব-শরীরে উপস্থিতি ছাড়াও অনলাইনে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম (আন-নাহার কমপ্লেক্সে), আলহাজ্ব রফিকুল হুদা চৌধুরী (বানু প্লাজা), আলহাজ্ব মোহাম্মদ হোছাইন (আপন টাওয়ার), আবু মোশের্দ চৌধুরী (সভাপতি, কক্সবাজার চেম্বার অব কমার্স ও আবু সেন্টার), আবু জাফর ছিদ্দিকী (জাফর প্লাজা), মোঃ খোরশেদ আলম (আছাদ কমপ্লেক্স), মাহবুবুল হক মুকুল (ফিরোজা শপিং কমপ্লেক্স), এডভোকেট আ.জ.ম মঈন উদ্দিন (হাসেম টাওয়ার), কামরুল ইসলাম কাজল (এ.ছালাম মাকের্ট), আনোয়ার আহমদ (ফজল মাকের্ট), ইয়াসিন পারভেজ চৌধুরী (হেফাজত মাকের্ট), আলহাজ্ব লোকমান হাকিম মাস্টার (আশরাফিয়া কমপ্লেক্স), আলহাজ্ব আবদুর রহিম চৌধুরী (এ.আর.সি. টাওয়ার), এডভোকেট তাপস রক্ষিত (রক্ষিত মাকের্ট), এডভোকেট সৈয়দ রাশেদ উদ্দিন (আকিব মাকের্ট), হামিদুর রহমান (কাদের শপিং কমপ্লেক্স), আবুল কাসেম (কাসেম প্লাজা), মোঃ নুরুল আমিন (নোভা শপিং), মোঃ শহিদুল ইসলাম (ইসলাম টাওয়ার), মোঃ নুরুল ইসলাম (জে.এন প্লাজা), আলহাজ্ব জালাল আহমদ (আলমাস কমপ্লেক্স), আলহাজ্ব আব্দুল শুক্কুর (সৌদিয়া বার্মিজ মাকের্ট), আজিজ মাওলা (হাজেরা শপিং সেন্টার), সাইফুদ্দিন খালেদ (সফিক সেন্টার), শাহেদ মিজান (আলোছায়া পয়েন্ট), সরওয়ার রোমন (কাসেম প্লাজা মাকের্ট), মোঃ আলী হোসেন বাবুল (গুলজার শপিং কমপ্লেক্স) প্রমুখ। সভা সঞ্চালনা করেন এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোঃ নুরুল করিম (আশা শপিং কমপ্লেক্স)।

সভায় এসোসিয়েশনের সদস্য আলোছায়া পয়েন্টের স্বত্বাধিকারী মোহাম্মদ শাহজাহানের ইন্তেকালে গভীর শোক প্রকাশ ও মরহুমের আতœার মাগফেরাত কামনা এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করা হয়।

সর্বশেষে উপস্থিত এবং অনলাইনে অংশগ্রহণকারী সকল সদস্যদের প্রতি ধন্যবাদ জানিয়ে সভাপতি সভার সমাপ্ত ঘোষণা করেন।