মোহাম্মদ হোসেন,হাটহাজারী :
হাটহাজারীতে গত ১০ আগষ্ট পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৭১৮ জন। তাদের মধ্যে চিকিৎসক,সাংবাদিক, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী রয়েছে। মোট সুস্থ হয়েছে ৩৭৫ জন। এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে ১৭ জন। স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ আউটডোরে করোনা রোগীদের জন্য আলাদা সেট নির্মাণ করা করা হয়েছে সেখান থেকে নমুনা সংগ্রহ করছে চিকিৎসকরা।

প্রতিদিনই সকালে রোগীরা ফর্ম এ নাম অন্তভুক্ত করেন দুপুর ১২ টার দিকে নমুনা সংগ্রহ করা করেন চিকিৎসকরা। করোনা রোগী ছাড়াও আউটডোর চিকিৎসা সেবা দিচ্ছে চিকিৎসকরা। জরুরী বিভাগের রোগীদের জন্য সব সময় উম্মুক্ত রয়েছে। নমুনা পরীক্ষার পরে যাদের রেজাল্ট তাদেরকে ফোন করে জানিয়ে দেওয়া হচ্ছে যাদের পজিটিভ আসছে তাদেরকে হসপিটালে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন চিকিৎসকরা। যারা বাসায় চিকিৎসা নিচ্ছেন তাদেরকে ফোনের মাধ্যমে চিকিৎসা পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। প্রয়োজনে সার্বক্ষণিক চিকিৎসকদের সাথে ফোনে পরামর্শ নেওয়ার জন্য অনুরোধ জানান।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃ পঃ কর্মকর্তা ডা, এ এস এম ইমতিয়াজ হোসাইন বলেন,স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ মোট ২২টি সীট সরাসরি অক্সিজেন সরবরাহ করার
ব্যবস্থা করা হয়েছে । ৩টি জরুরী বিভাগে, ৩টি কেবিনে, ১৬টি ওয়ার্ডে। ৩০টি ৬৮০০ লিটার ধারণ ক্ষমতার সিলিন্ডার দিয়ে অক্সিজেন সরবরাহ করা যাবে জানান চিকিৎসকরা। ১২টি সার্বক্ষণিক সরবরাহ লাইনে সংযুক্ত থাকবে ।

তিনি আরো বলেন, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মী সেবা দিয়ে গেলেও অনেক রোগী তাদের রোগ সর্ম্পর্কে ডাক্তার এর কাছে গোপন রাখার কারনে আক্রান্ত হচ্ছে
সেবাদানকারীরা। পর্যালোচনা করে জানা যাচ্ছে অনেক রোগী হাসপাতালে এসে তথ্য গোপন করে রাখছেন। ফলে চিকিৎসক, নার্স অথবা অন্য স্বাস্থ্যকর্মীরা অনেক সময় সতর্কতা ছাড়াই ওইসব রোগীর চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন। এতে তারা আক্রান্ত
হচ্ছেন। এ জন্য আমরা প্রতিটি হাসপাতালে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের আরও
সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিচ্ছি।