শাহেদ মিজান, সিবিএন :
মেজর (অব.) সিনহা মোঃ রাশেদ হত্যার ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা দুটি ও পুলিশের বিরুদ্ধে দায়ের করা সিনহার পরিবারের হত্যা মামলাসহ তিনটি মামলার তদন্তভার এখন র‌্যাবের হাতে। পরিবারের দায়ের করা হত্যা মামলাটি আগেই  তদন্তের দায়িত্ব র‌্যাবকে দেন আদালত। সর্বশেষ পুলিশের দায়ের করা তিনটি মামলার মধ্যে দুটি র‌্যাবের কাছে ন্যস্ত করেছে আদালত। আজ সোমবার সকাল ১১টায় মেজর (অব.) সিনহার পরিবারের আইনজীবিদের আবেদনের প্রেক্ষিতে টেকনাফ থানা পুলিশের দুটি মামলার তদন্তভার  র‌্যাবকে দেন।

তথ্য মতে, ৩১ জুলাই রাতে বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়িতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোঃ রাশেদ খান। এরপর পুলিশের পক্ষ থেকে হত্যা, মাদক ও সরকারি কাজে বাঁধার অভিযোগ এনে আলাদাভাবে তিনটি মামলা দায়ের করা হয়। এর মধ্যে দুটি টেকনাফ থানায় ও একটি রামু থানায়।
অন্যদিকে সিনহার পরিবারের পক্ষে তার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস কক্সবাজারের আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলাটি পরে টেকনাফ থানায় নিয়মিত হত্যা মামলা হিসেবে রুজু হয়। সেই মামলায় এসআই লিয়াকতকে প্রধান এবং ওসি প্রদীপকে ২নং করে নয়জনকে আসামী করা হয়।
সিনহার পরিবারের আইনজীবি এড. মোঃ মোস্তফা বলেন, টেকনাফ থানা পুলিশের দায়ে করা দুটি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ছিলো পুলিশের কর্মকর্তা। পুলিশ মামলাগুলো তদন্ত করলে মিথ্যা ও ভিন্নখাতে প্রভাবিত হওয়ার প্রবল আশঙ্কা ছিলো। তাই আমরা মামলাগুলোর সঠিক তদন্তের স্বার্থে তদন্ত কর্মকর্তা বদলীর আবেদন করি। আবেদন আমলে নিয়ে আজ সোমবার (১০ আগস্ট) পুলিশের দায়ের করা দুটি মামলার তদন্ত দায়িত্ব র‌্যাবের হাতে ন্যস্ত করার আদেশ দেন। তবেে রামু থানা পুলিশের দায়ে সিনহার সঙ্গী শিফ্রার মামলাটি এখনো পুুুলিশের হাতে রয়েছে।