মোহাম্মদ কাইমুল ইসলাম ছোটনঃ
পায়ে হেঁটে চলাচল সহজে সম্ভব নয়। যানবাহনে চলাচল করতে হয়। তারপরও যানবাহন যেতে চায় না লক্কর-ঝক্কর রাস্তাগুলো দিয়ে। আর একটু বৃষ্টি হলে মাতারবাড়ীর গুরুত্বপূর্ণ রাস্তাগুলোর দৃশ্য পাল্টে যায়। সড়ক নয়, যেন পুকুর!

মাতারবাড়ীর সিএনজি স্টেশন হতে সর্দার পাড়ার প্রায় ৩ কিলোমিটার রাস্তা দিয়ে সহস্রাধিক মানুষ যাতায়াত করতে হয়। প্রতিদিন প্রকল্পে নিয়োজিত গাড়ি, ইট-বালু ভর্তি ট্রাক, পণ্যবাহী যাহবাহনসহ শতাধিক গাড়ি এবং মাতারবাড়ী ইউনিয়নের ৪,৫,৬,৭,৮,৯ নং ওয়ার্ডের সহস্রাধিক মানুষ এই রাস্তাদিয়ে যাতায়াত করে।

সরজমিনে জানা যায়, মাতারবাড়ী এই প্রধান রাস্তাগুলো খানা-খন্দে ভরা। বিশেষ করে, তিতামাঝির পাড়া, দক্ষিণ মিয়াজীর পাড়া, বলিরপাড়া রাস্তার করুণ অবস্থা। একটু বৃষ্টি হলে জমে থাকে পানি, সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতার। ৪-৫ বছরে সংস্কারের ছোঁয়া না লাগাই চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

স্থানীয়দের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে রাস্তা সংস্কার না হওয়া বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এই রাস্তায় বৃষ্টি হলে পানি জমে থাকায় চলাচলে অনেক অসুবিধায় পড়তে হয়। জরুরি প্রয়োজনে জেলা শহরে বা উপজেলা সদরে যোগাযোগ করতে নিত্যদিন দুর্ভোগ পোহাচ্ছে এলাকাবাসী।

টমটম চালক আব্দুল আলিম জানান, এই রাস্তাগুলো প্রায় খানাখন্দে ভরা। যার ফলে যাত্রী নিয়ে চলাচলে অনেক কষ্ট হয়ে যায়, শিকার হতে হয় বিভিন্ন দুর্ঘটনার।

রিক্সাচালক মানিক জানান, ভাঙ্গা রাস্তার কারণে গাড়ি প্রায় বিকল হয়ে পড়েছে। বড় বড় গর্তে গাড়ি পড়ে অাটকে যায়। ফলে বর্ষায় গর্তে পানি জমে গেলে যাত্রী নিয়ে অাসা যাওয়া অনেক কষ্ট হয়ে পড়ে।

মাতারবাড়ী ইউনিয়ন মৎস্যজীবী লীগের সাবেক সভাপতি ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা জিএম ওয়াহেদ বাপ্পি বলেন, তিতামাঝির পাড়ার রাস্তাগুলো খুবই খারাপ। এই রাস্তা দিয়ে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ চলাচল করে। রাস্তায় বৃষ্টি হলে পানি জমে থাকে। জলাবদ্ধতার কারণে মানুষের চলাচলে খুব কষ্ট হয়ে যায়।

তিনি আরো বলেন, দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়াটা তার প্রধান কারণ। তাই রাস্তা গুলো দ্রুত সংস্কারের জন্য স্থানীয় জন প্রতিনিধি ও উপজেলা প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

মাতারবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জি এম ছমি উদ্দীন বলেন, রাস্তাতে বৃষ্টি হলে পানি জমে থাকে, সৃষ্টি হয় জলাবদ্ধতা-জনদুর্ভোগের । দীর্ঘদিন রাস্তাগুলো সংস্কার করা হচ্ছে না, কর্তৃপক্ষকে জানানো হলে ও কোন ব্যবস্থা হয়নি। দ্রুত সংস্কার করা না গেলে জনদূর্ভোগ আরো বৃদ্ধি পাবে। তাই দ্রুত সংস্কারের দাবি জানাচ্ছি।

মাতারবাড়ী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাষ্টার মোহাম্মদ উল্লাহর সাথে যোগাযোগ করলে ফোনে পাওয়া যায় নি ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •