সিবিএন ডেস্ক :

কক্সবাজারের উন্নয়ন ও স্বার্থ রক্ষার কার্যক্রম স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে আরও বিস্তৃত করার লক্ষ্যে প্রথম ও দ্বিতীয় প্রজন্মের সমন্বয়ে কক্সবাজার এসোসিয়েশন (সিবিএ) ইউকের নতুন নির্বাহী কমিটি গঠিত হয়েছে। গত ১৩ই জুন লন্ডনে সংগঠনটির বার্ষিক সভায় ২০২০-২২ সালের জন্য নির্বাচিত সভাপতি নাঈম সোবহান চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা শামীম নতুন কমিটি ঘোষণা করেন।

সিবিএ ইউকের স্টিয়ারিং কমিটির চেয়ারম্যান ডঃ শাহেদ চৌধূরীর সভাপতিত্বে ও নতুন নর্বাহী কমিটির সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা শামীমের পরিচালনায় সংগঠনটির লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও ভবিষ্যত কর্মপরিকল্পনা সম্পর্কে বক্তব্য রাখেন স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য সচিব ডঃ মোহাম্মদ শফিউল্লাহ, সদস্য ব্যারিস্টার সারওয়ার কামাল, মিডিয়া ব্যাক্তিত্ব আব্দুল আওয়াল মামুন, ব্যরিস্টার আব্দুল গাফফার, ফরিদ তৈয়ব প্রমুখ। ডঃ শাহেদ চৌধূরী বলেন কক্সবাজারের স্বার্থ রক্ষা ও উন্নয়নে ইউকেতে বসবাসরত কক্সবাজারের প্রথম ও দ্বিতীয় প্রজন্মের দায়িত্ব রয়েছে। ইউরোপের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে কক্সবাজারে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও সামাজিক উন্নয়নের লক্ষ্যে কক্সবাজার এসোসিয়েশন ইউকে গঠিত হয়েছে। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে আমরা কক্সবাজারের সার্বিক অবস্থা নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছি ও কক্সবাজারের জন্য কাজ করার চেষ্টা করছি।

স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার সারওয়ার কামাল বলেন ইউরোপে অর্জিত শিক্ষা কক্সবাজারের সামাজিক উন্নয়নে কিভাবে কাজে লাগানো যায় তা নিয়ে সিবিএ ইউকে কাজ করছে। তিনি মনে করেন কক্সবাজারের স্বার্থ রক্ষা ও উন্নয়নের জন্য সাংগঠনিক নেতৃত্ব সৃষ্টি, নতুন ধারনার উন্নয়ন ও বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চা বাড়ানোর বিকল্প নেই। নতুন নির্বাহী কমিটিকে তিনি এই বিষয়ে মনোযোগী হতে বিশেষভাবে অনুরোধ করেন। ডঃ শফিউল্লাহ পুরনো কমিটির কার্যক্রমের প্রশংসা করে বলেন কার্যকরী কমিটির সদস্যরা ইউকেতে বসবাসরত কক্সবাজারের মানুষকে সমবেত করে বৃহৎ একটি পরিবারে রুপান্তর করেছে। আমাদের মধ্যে পারস্পরিক যে শ্রদ্ধা ও হৃদ্যতা রয়েছে তা দেখে আমাদের দ্বিতীয় প্রজন্ম বেড়ে উঠছে। আশা করি দ্বিতীয় প্রজন্ম এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে সক্ষম হবে।

পুরনো কমিটির সভাপতি গিয়াস উদ্দিন তাঁর সময়কার কার্যক্রমের পর্যালোচনা তুলে ধরে নতুন কমিটির কাছে অসমাপ্ত কিছু প্রকল্প হস্তান্তর করেন। অর্থ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান সিবিএ ইউকের আর্থিক প্রতিবেদন ও সংগঠনের আর্থিক অবস্থার উন্নয়নে গৃহীত পদক্ষেপগুলো তুলে ধরেন। সিবিএ ইউকের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য বশির জামান তাঁর পর্যালোচনামূলক বক্তব্যে অতীতের কার্যক্রমগুলোর বিশ্লেষণ তুলে ধরে নতুন নির্বাহী কমিটির করনীয়র ব্যপারে কিছু পরামর্শ উপস্থাপন করেন। তিনি বলেন সংগঠনটি প্রতিনিয়ত শক্তিশালী হচ্ছে। এ ধারা অব্যাহত থাকলে সিবিএ ইউকে অদূর ভবিষ্যতে কক্সবাজারের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ন ভুমিকা পালন করতে সক্ষম হবে।

অনুষ্ঠানের শেষ ভাগে নতুন নির্বাহী কমিটির সভাপতি নাঈম সোবহান চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক সোহেল রানা শামীম কমিটির সদস্যদের পরিচয় তুলে ধরেন। সদস্যরা সিবিএ ইউকে নিয়ে তাঁদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার সংক্ষিপ্ত বর্ননা স্টিয়ারিং কমিটির সদস্যদের সামনে উপস্থাপন করেন। নতুন নির্বাহী কমিটির সভাপতি নাঈম সোবহান চৌধুরী সমাপনী বক্তব্যে বলেন পরামর্শ ও আলোচনার মাধ্যোমে সিদ্ধান্ত গ্রহন, জবাবদিহিতা, বুদ্ধিবৃত্তিক চর্চা, কার্যকর প্রকল্পের মাধ্যমে সাংগঠনিক কার্যক্রমকে আরো স্বতঃস্ফুর্ত করা হবে। স্টিয়ারিং কমিটির চেয়ারম্যান ডঃ সাহেদ চৌধূরী পুরনো কমিটির কার্যক্রমের জন্য কমিটির সকলকে ধন্যবাদ ও নতুন নির্বাহী কমিটিকে শুভকামনা জানিয়ে বার্ষিক সভার সমাপ্তি ঘোষনা করেন।

কক্সবাজার এসোসিয়েশন ইউকের নতুন নির্বাহী কমিটিতে রয়েছেনঃ

সভাপতি- নাঈম সোবহান চৌধুরী

সহ-সভাপতি- বশির জামান বাবু

সহ-সভাপতি- শারজিল আহসান রুবেল

সহ-সভাপতি- আবু নোমান

সাধারণ সম্পাদক- সোহেল রানা শামীম

যুগ্ম সম্পাদক- রিয়াদ বিন আজাদ

সাংগঠনিক সম্পাদক- আশফাক রনি

অর্থ সম্পাদক- সাজ্জাদুর রহমান

মহিলা ও শিশু বিষয়ক সম্পাদক- রোকেয়া সুলতানা হোসাইন।

সহ- মহিলা ও শিশু বিষয়ক সম্পাদক- নাফিসা চৌধূরী

প্রচার ও যোগাযোগ সম্পাদক- মুহাম্মাদ হোসাইন

সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক- ইমরুল হাসান

ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কো-অর্ডিনেটর – আহসান হাবিব মাসুম

থানা এম্বেসেডর (কক্সবাজার)- ইয়াসিন আরাফাত

থানা এম্বেসেডর (উখিয়া-টেকনাফ)- সাফফাত ফারদিন চৌধুরী

থানা এম্বেসেডর (রামু)- নুরুল হক

থানা এম্বেসেডর (চকরিয়া)-মইনুল ইসলাম।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •