বিউটি দাশ

মেঘনার ঢলের মতো–
সর্বনাশী পদ্মার বন্যার গ্রাসের–
আমার মরণ দশা তুমি?

বনবাসী সীতার কুটির ভাঁসমান ন্যায়,
গঙ্গার ভিন্ন রুপ রক্তাক্ত–বৈতরণী ধারায়।
আমার মরণ দশা তুমি?

তুমি আমার প্রেম ভক্তির সর্ব সাধনা,
সৃষ্টির সমস্ত সুন্দর -পবিত্রতা তোমার জন্যই জমা!
আমার মরণ দশা তুমি?

দু’চোখের দৃষ্টি তোমার জন্য চোখের গভীরে ঢাকা,
অন্ধ আমি অন্যকেউ নয় সত্যিই তোমার জানা।
আমার মরণ দশা তুমি ?

দর্শন মাত্রই সেই দৃষ্টি ফেলব তোমার চোখে,
চারিদিকে ছড়িয়ে দেব জমানো সমস্ত পবিত্রতার সৌন্দর্যকে।
আমার মরণ দশা তুমি ?

ডুবাবে যখন জীবন-মরণ দশায় আমায়,
দেখতে পাব আমাকে দৃষ্টি যে রাখা তোমার চোখে!
আমার মরণ দশা তুমি ?

চোখ থেকে ফেল না একফোঁটা জল,
মৃত্যু ও দেবে, আবার আমার চোখকেও কাঁদাবে!
আমার মরণ দশা তুমি?

তব কি অধিকার মৃত্যু দিলে যারে, তাঁর চোখকে কাঁদাবারে!
আমার মরণ দশা তুমি?

পবিত্রতার অদৃশ্য দৃষ্টি তোমাকেই
অর্পন করেছি,
ধ্যানে-জ্ঞান-ত্যাগে স্মরণে আছে কি।
আমার মরণ দশা তুমি?

জন্ম- মৃত্যু পর্যন্ত ঐ দৃষ্টি তোমার জন্যই সঞ্চিত,
প্রথম তোমায় দেখার আশে মানুষ কেন দেব- দেবী-বিশ্ব দেখা- বঞ্চিত।
আমার মরণ দশা তুমি ?

আমিও রাখলাম তব বাজি,
সঞ্চিত সত্যের অর্থে হারজিতে রাজি।
আমার মরণ দশা তুমি?

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •