এম.এ আজিজ রাসেল :
কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল বলেছেন, পুরো বিশ্ব এখন করোনায় কাবু। করোনায় অক্সিজেনের অভাবে ঝরে গেছে অনেক তাজা প্রাণ। বিশেষ করে কক্সবাজারের তরুণ পর্যটন উদ্যোক্তা রাশেদ আহমদ ডালিম, ব্যাংকার আবু নাঈম মো. মিজবাউল হক আরমান, সাংবাদিক মোনায়েম খান ও আয়াছ অক্সিজেনের অভাবে মারা যায়। কিন্তু এখন সদর হাসপাতালে সেন্ট্রাল লিকুইড অক্সিজেন প্লানেট স্থাপনের মাধ্যমে কক্সবাজারে আর কেউ অক্সিজেনের অভাবে মারা যাবে না। যেতে হবে ঢাকা-চট্টগ্রাম।
বৃহস্পতিবার (৩০ জুলাই) সকালে ইউনিসেফ এর সহযোগিতায় স্থাপিত কক্সবাজার সদর হাসপাতালে সেন্ট্রাল লিকুইড অক্সিজেন প্লানেট উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।
সাংসদ কমল আরও বলেন, লকডাউনের কারণে এতোদিন অক্সিজেন প্লানেট আনা যায়নি। বর্তমানে সদর হাসপাতালে সেন্ট্রাল লিকুইড অক্সিজেন প্লানেট স্থাপনের মধ্য দিয়ে সুবর্ণ দিন শুরু হলো। এর মাধ্যমে দেয়া যাবে হাইজেন ক্যানোলা। হাসপাতালে ইতোমধ্যে ৮টি হাইজেন ক্যানোলা রয়েছে। আরও আনা হবে। শিগগিরই সংযুক্ত করা হবে ডাইলোসিস সেন্টার।
সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল বলেন, পুরো দেশের মধ্যে কক্সবাজার সদর হাসপাতালেই প্রথম অক্সিজেন প্লানেট স্থাপিত হয়। এতে করে উন্নত চিকিৎসার দিক দিয়ে আরও একধাপ এগিয়ে গেল কক্সবাজার। বর্তমানে এখানে আধুনিক সব সুযোগ সুবিধা রয়েছে। এছাড়া হাসপাতালে ডাক্তার নার্স, কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের সংকট নেই। তারা সবাই জীবনের ঝুঁকি কাজ করছে। এ জন্য তারা প্রশংসার দাবি রাখে।
কক্সবাজার সদর হাসপতালে সদ্য যোগদান করা তত্ত¡াবধায়ক ডা. জাকির হোসেন খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল প্লাটফরমে বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. অনুপম বড়ুয়া, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইকবাল হোসেন, বিএমএ’র সাধারণ সম্পাদক ডা. মাহবুবুর রহমান, ডা. পিন্টু ভট্টচার্য্য ও কক্সবাজার সমাজ সেবা কার্যালয়ের উপ পরিচালক ফরিদুল আলম।
অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন কক্সবাজার সদর হাসপাতালের সহকারি পরিচালক ডা. রফিক-উস- ছালেহীন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন ইউনিসেফ এর স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডা. ইউলিয়া উইদিয়াতি, ডা. সুমন বড়ুয়া, ডা. শাহীন আবদুর রহমান, ডা. বিধান পাল ও ব্যবসায়ী রুস্তম আলী।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •