প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ উপকমিটির সদস্য বাবু সুজন শর্মার উদ্দ্যোগে কক্সবাজারের ৮টি উপজেলায় বৃক্ষরোপণ অভিযান কার্যক্রম উদ্বোধন করলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন। অনলাইন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন, বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র  মুজিবুর রহমান।

“মুজিববর্ষের আহ্বান, লাগাই গাছ বাড়াই বন” এই প্রতিপাদ্য ধারণ করে সারা দেশে এক কোটি বৃক্ষরোপণের অংশ হিসেবে আজ কক্সবাজার জেলায় উদ্বোধন হলো বৃক্ষরোপণ অভিযান। কক্সবাজারের কৃতি সন্তান, কক্সবাজার সমিতি ঢাকার যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক (১), তরুণ উদ্দ্যোক্তা, বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ উপকমিটির সদস্য বাবু সুজন শর্মার উদ্দ্যোগে আয়োজিত কক্সবাজারের ৮টি উপজেলায় বৃক্ষরোপণ অভিযান কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়।

কক্সবাজারে বৃক্ষরোপণ কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানটি টিটিএন নিউজে এ সরাসরি সম্প্রচার করা হয়। তৌফিকুল ইসলাম লিপুর সঞ্চালনায় অনলাইন উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উদ্বোধক বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক জনাব দেলোয়ার হোসেন বক্তব্যের শুরুতে এই মহতি কার্যক্রমের সাথে যারা সম্পৃক্ত আছেন তাদের প্রতি ধন্যবাদ জানান। দেলোয়ার হোসেন বলেন বৃক্ষরোপণের মধ্য দিয়ে আমরা জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিকী উৎযাপন করছি। ১ কোটি বৃক্ষ রোপণের মধ্যদিয়ে পরিবেশ বিপর্যয় রোধ করা কিছুটা হলেও সম্ভব হবে। তিনি আরো বলেন বর্তমান সরকারের উন্নয়নের রোল মডেল কক্সবাজার জেলার ৮টি উপজেলায় আজ যে বৃক্ষরোপনের অভিযান শুরু হলো, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার্থে এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক জনাব মো. কামাল হোসেন বলেন, আমরা যখন করোনা মহামারি মোকাবেলা করে কিছুটা স্বতির পথে, ঠিক এই সময়ে পরিবেশ রক্ষায় কক্সবাজারে বৃক্ষরোপণ কার্যক্রম প্রশংসার দাবি রাখে। তিনি বলেন সরকার ও বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ রাজনৈতিক সংগঠন আওয়ামী লীগ যখন যুগপতভাবে কোন কার্যক্রম হাতে নেয় তা বাস্তবায়ন করা অনেক সহজ হয়। বৃক্ষরোপন অভিযান তার উৎকৃষ্ট উদাহরণ। বৃক্ষরোপণ কার্যক্রমকে সমস্ত জেলায় ছড়িয়ে দিতে সব ধরণের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

বিশেষ অতিথি কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র  মুজিবুর রহমান বলেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ উপকমিটির কক্সবাজারে বৃক্ষরোপন অভিযানের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে থাকতে পেরে আমি অনন্দিত। কমিটির সদস্য কক্সবাজারের সন্তান সুজন শর্মার সাংগঠনিক কার্যক্রম আমাকে সবসময় মুগ্ধ করে। আমি তার উত্তর উত্তর সমৃদ্ধি কামনা করি। আজকের এই আয়োজন কক্সবাজারবাসীকে পরিবেশ রক্ষায় আরো বেশী সচেতন করবে বলে আশা প্রকাশ করেন।

শুভেচ্ছা বক্তব্যে বৃক্ষরোপন অভিযানের উদ্দ্যোক্তা কক্সবাজারের সন্তান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র ও বাংলাদেশ কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ উপকমিটির সদস্য বাবু সুজন শর্মা বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে সারা দেশে এক কোটি বৃক্ষরোপণ কার্যক্রমের অংশ হিসেবেই বন ও পরিবেশ উপকমিটির এই উদ্দ্যোগ। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত কক্সবাজারের স্থানীয় শিক্ষার্থীদের সহায়তায় আটটি উপজেলাতেই ধারাবাহিকভাবে এই কার্যক্রম চলতে থাকবে। সমুদ্র ও পাহাড়ের এই লীলাভুমিকে আরো মনোরোম- প্রাকৃতিক সৌন্দর্য বৃদ্ধির লক্ষ্যে সবাইকে এগিয়ে আসার আহবান জানান। অনুষ্ঠানের উদ্বোধক, প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথির প্রতি কৃতজ্ঞতা ও মিডিয়া পার্টনার টিটিএন নিউজ এবং এই কার্যক্রমের সাথে সম্পৃক্ত কক্সবাজারস্থ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

বাবু সুজন শর্মার নির্দেশনায় ও সহযোগিতায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কক্সবাজার স্টুডেন্ট ফোরামের সভাপতি ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সম্পাদক নোমান পারভেজ শাহর নেতৃত্বে শতাধিক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কক্সবাজারের আটটি উপজেলায় বৃক্ষরোপণ কার্যক্রম পরিচালনা করবে। আজ ২৯ জুলাই, ২০২০ইং টেকনাফ উপজেলার হ্নীলার পানখালিতে গাছের চারা রোপনের মধ্যদিয়ে বৃক্ষরোপণ অভিযান শুরু হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •