cbn  

জালাল-রাশেদ চক্রের মাধ্যমে সংগঠনের নামে কোনো অপকর্ম হলে তার দায় সংগঠনের নেতৃবৃন্দ নেবে না। কক্সবাজার অটো রিক্সা টেম্পো পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়ন (রেজি নং ১৪৯১) সভাপতি জিন্নাত আলী ও সাধারণ সম্পাদক ছিদ্দিক আহমদ এই কথা জানিয়ে বিবৃতি প্রদান করেছেন।

বিবৃতিতে তারা বলেন, নিজেদের কক্সবাজার অটো রিক্সা টেম্পো পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের  নেতা দাবি করে অবৈধভাবে সংগঠনের অফিস দখল করার পর এবার অবৈধ কমিটি গঠন করছে কথিত শ্রমিক নেতা জালাল আহামদ ও স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা রাশেদুল মোস্তফা নেতৃত্বে একটি চক্র। কমিটির নামে মোটা টাকা হাতিয়ে নেয়া ও সংগঠনের নামে চাঁদাবাজি করতেই এই চক্রটি সংগঠনের নানা অবৈধ কার্যক্রম চালাচ্ছে।

তারা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে কথিত শ্রমিক নেতা জালাল আহামদ ও স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা রাশেদুল মোস্তফা নেতৃত্বে একটি চক্র সংগঠনের নেতৃত্ব ও অফিসটি দখল করার জন্য অপচেষ্টা চালিয়ে আসছে। বিষয়টি আদালত এবং শ্রম অধিদপ্তর পর্যন্ত গড়ায়। আদালতের রায় এবং শ্রম অধিদপ্তরের তদন্তে আমাদের (জিন্নাত আলী-ছিদ্দিক আহমদ) কমিটি বৈধতা পায়। সে মোতাবেক অফিসের দখল স্বত্বও আমরা পাই। তাই দীর্ঘদিন ধরে বাজারঘাটাস্থ অফিসটি তাদের দখলে থাকে। এর মধ্যে করোনার কারণে লকডাউন হলে অফিসটি বন্ধ রাখা হয়। কিন্তু লকডাউন খুলে দেয়াকে পুঁজি করে সম্প্রতি তালা ভেঙে অফিস দখল করে নেয় কথিত শ্রমিক নেতা জালাল আহামদ ও স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা রাশেদুল মোস্তফা নেতৃত্বে একটি চক্র। এই বিষয়ে আমরা থানায় অভিযোগ দায়ের করি। কিন্তু ঘটনাকে ভিন্নখাতে নিতে ওই সময় জালাল আহামদ ও রাশেদুল মোস্তফা কয়েকজন ভাড়াটে লোকজন নিয়ে এসে অফিসে ভাংচুর চালায় এবং বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি।

জিন্নাত আলী ও ছিদ্দিক আহমদ বলেন, সেই থেকে অবৈধভাবে জোর করে সংগঠনের অফিসটি দখলে রেখেছে জালাল-রাশেদ চক্র। শুধু তাই নয়, অফিস দখলকে পুঁজি করে তারা দুই নিজেদের সংগঠনের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক দাবি করে এবার অবৈধভাবে শাখা কমিটি গঠন করছে। ইতোমধ্যে পেকুয়া ও কলাতলী লাইনের কমিটি গঠন করেছে। জালাল-রাশেদ যেমন অবৈধ তাদের গঠিত এসব কমিটিও অবৈধ। শুধু তাই নয়; তারা মোটা টাকা হাতিয়ে এসব গঠন করছে বলে আমরা খবর পাচ্ছি। তাদের উদ্দেশ্যে অবৈধ কমিটি দিয়ে টাকা হাতিয়ে নেয়া এবং সংগঠনের সড়কে চাঁদবাজি করা। আইনগত ভাবে তাদের সব কার্যক্রম অবৈধ। তাই তাদের কোনো অবৈধ কর্মকান্ডের দায়ভার সংগঠন বহন করবে না।

সংগঠনের শ্রমিকদের উদ্দেশ্য আমাদের বক্তব্য হলো, আপনার প্রতারক জালাল-রাশেদ চক্রের ফাঁদে পা দেবেন না। তারা অবৈধভাবে আপনাদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়ার জন্য প্রোপাগান্ডা চালাচ্ছে। আইনগতভাবে তাদের এই কার্যক্রম দন্ডনীয়। আমরা সজাগ থেকে জালাল-রাশেদ চক্রের ফাঁদ থেকে দূরে থাকবেন।

বিবৃতিদাতা
জিন্নাত আলী– সভাপতি
ছিদ্দিক আহমদ– সাধারণ সম্পাদক
কক্সবাজার অটো রিক্সা টেম্পো পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়ন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •