cbn  

প্রেস বিজ্ঞপ্তি:

কক্সবাজারে ঈদগাঁওয়ের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও ঠিকাদার রমজানুল আলম প্রকাশ রমজান কোম্পানি গভীর ষড়যন্ত্রের শিকার বলে দাবী করেছেন এলাকাবাসী। গতকাল ঈদগাঁও ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড ও ২নং ওয়ার্ডের আংশিক এলাকার সচেতন এলাকাবাসী একটি বিবৃতি স্থানীয় গনমাধ্যমকর্মীদের কাছে পাঠিয়েছে। বিবৃতিতে নানান শ্রেণীর এলাকার মানুষ স্বাক্ষর করেন। তারা বলেন, রমজানুল আলম প্রকাশ রমজান কোম্পানি দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে অত্যন্ত সুনামের সাথে ব্যবসা বানিজ্য করে আসছে। পাশাপাশি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানও গড়ে তুলেন। তার প্রতিষ্ঠানের নাম আরএন এন্টারপ্রাইজ, তিনি এই প্রতিষ্ঠানটি পরিচালক। এলাকাবাসী জানান,রমজান কোম্পানির মত মানবিক মানুষ কম আছে। তিনি সবসময় মানবিক কাজে নিয়োজিত, চলমান লক ডাউনে বেকার হয়ে পড়া ২ শতাধিক পরিবারকে খাদ্য সামগ্রী তুলে দিয়েছে৷ গরীব অসহায় মানুষের পাশে দাড়িয়েছে, শতাধিক বেকার যুবকের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছে। এছাড়াও মসজিদ, শিক্ষা এবং ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান সমূহে আর্থিক ও সার্বিক সহযোগিতা করে আসছে৷ তার পৈত্রিক সম্পত্তি রয়েছে অহরহ,সেই সম্পদ নিয়ে তিনি তিলে তিলে গড়ে উঠেছে। অবৈধ ব্যবসা বানিজ্য তিনি কোনদিন করেননি। করলেও আমরা এলাকাবাসী প্রথম প্রতিবাদ করতাম। বর্তমানে দেশের যে ইস্যু নিয়ে সরকার ও প্রশাসন হার্ট লাইনে সেই মাদকের তকমা লাগিয়ে একজন সু প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীকে সমাজের মাঝে খাটো করেছ, যা অত্যন্ত নিন্দনীয় এবং দুঃখজনক৷ এলাকাবাসী আরো জানান, সম্প্রতি বাজার ইজারা এবং অন্যন্যা ব্যবসা বানিজ্য, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের কাজকর্ম নিয়ে বেশ কয়েকটি পক্ষ তার বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়৷ তারা রমজান কোম্পানির জনপ্রিয়তা, ব্যবসার সাফল্য দেখে প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে প্রশাসনকে ভুল তথ্য দিয়ে তাকে আটক করিয়েছে। আমরা চ্যালেঞ্জ করে বলতে চাই রমজান কোম্পানি কোনদিন মাদক ব্যবসায় জড়িত ছিল না। আমরা বিচার বিভাগীয় তদন্তের মাধ্যমে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও মুক্তির দাবী জানাচ্ছি।

নিবেদক
ঈদগাঁও ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের উত্তর মাইজ পাড়া এবং ২নং ওয়ার্ডের আংশিক উত্তর ও মধ্যম মাইজপাড়া।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •