নিজস্ব প্রতিবেদক :
ইয়াবা ব্যবসা ও সেবনে বাধা দেয়ায় নিজ স্ত্রীকে বেধড়ক হামলা করে রক্তাক্ত করলো পাষান্ড স্বামী। এ হামলায় অংশ গ্রহন করে ইয়াবা সেবনকারী স্বামীর পরকীয়া প্রেমিকা ও ইয়াবা বিক্রেতারা। এ ঘটনায় ৫ জনকে আসামী করে একটি মামলা করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটে গত ১৭ জুলাই উখিয়ার সোনারপাড়া জালিয়াপালং ৩নং ওয়ার্ডে।

মামলার এজাহার সুত্রে জানা গেছে, ২০১২ সালের ২৭ মে প্রেমের সূত্র ধরে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয় উত্তর সোনার পাড়া এলাকার সালাহ উদ্দিনের ছেলে মো: রাসেল এর সাথে ভোলা জেলার চরফ্যাশন উপজেলার দক্ষিন ফ্যাশন ৯নং ওয়ার্ডের রিনা বেগম এর সাথে। বিয়ের পর কয়েকবছর সুখে শান্তিতে দাম্পত্য জিবন সূখে থাকলেও মাদকে জড়িয়ে পড়ে রাসেল। তাদের পরিবারের ৫ বছরের একটি সন্তানও রয়েছে। স্বামী রাসেল মাদক সেবন ও ইয়াবা ব্যবসায় জড়িয়ে পড়লে স্ত্রী বাধা দেয়। এক পর্যায়ে অতিরিক্ত মাদক সেবন করলে স্ত্রী রিনা যেখানে মাদক বিকিকিনি করে সেখানে গিয়ে প্রতিবাদ করে তার স্বামীকে মাদক না বিক্রি করতে। কিন্তু তারা তা সহ্য করতে না পেরে স্ত্রী রিনাকে স্বামী রাসেল, মৃত ছৈয়দ আহমদের ছেলে মাদক ব্যবসায়ী শাহ আলম (৪৫), সাইদুল ইসলাম (২১), মৃত হাবিব উল্লাহর ছেলে জাফর আলম (৬০) ও শাহ আলমের স্ত্রী খালেদা বেগম (৩৫)সহ আরো ৪/৫ জন দা-কিরিচ নিয়ে বেধড়ক মারধর করে। পরে স্থানীয়রা আহত রিনাকে উদ্ধার করে প্রথমে উখিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করে। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠিয়ে দেন।
এ ঘটনার পর আহত রিনা বেগম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছে।

এ ঘটনায় রিনা বেগম বাদী হয়ে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে একটি মামলা করেছে। এরআগেও স্থানীয়ভাবে অনেক বিচার শালিস হয়েছিল। কিন্তু ইয়াবা সেবনকারী রাসেল গং বিচার না মেনে উল্টো আরো হুমকি দেয়।

আহত রিনা বেগম জানান, তিনি তার স্বামীকে ভালো পথে আনার জন্য আপ্রান চেষ্টা করছেন। কিন্তু তিনি উল্টো হুমকি-ধমকি এবং শেষে হামলা করেছে। তাই আমি নিরুপায় হয়ে আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হয়েছি। তিনি প্রশাসনের কাছে নিরাপত্তা চেয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •