অনলাইন ডেস্ক : আসন্ন ঈদুল আযহা উপলক্ষে কোরবানি বন্ধ করার জন্য মামলা করলেন অর্জুন সিং। আর কিছু দিন পরই ঈদ। ঠিক তার আগে এই মামলা দায়ের করলেন বিজেপি সাংসদ।
তবে ভারতে কোরবানির বিরুদ্ধে এটিই প্রথম কোনো মামলা নয়। এর আগেও দেশটির হাইকোর্টে এ ধরনের মামলা হয়েছিল।

প্রথম মামলাটি করা হয় ২০০৮ সালে। তখন আদালত নির্দেশ দেয়, পশুহত্যার নিয়ম মানতে হবে কোরবানি ঈদের সময়। কসাইখানায় পশুদের নিয়ে যাওয়ার আগে সেগুলোর সঠিক পরীক্ষা করতে হবে।

২০১৯ সালে আবারো এই মর্মে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়। মামলাকারীর অভিযোগ ছিল, পশুহত্যার নিয়ম কিছুই মানা হচ্ছে না পশ্চিমবঙ্গে। সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট রাজ্যকে সব নিয়ম মেনে চলার নির্দেশ দেয়।

এবার ঘটনাও অনেকটা তেমনই। আর মাত্র এক সপ্তাহ পরই কোরবানি ঈদ। তার আগে রাজ্য সরকার পশুহত্যা নিয়ে কী ব্যবস্থা নিচ্ছে, তা জানতে চাওয়া হয়েছে অর্জুন সিংয়ের আইনজীবীর পক্ষ থেকে। দ্রুত শুনানির আবেদন জানিয়েছেন সাংসদের আইনজীবী।

এর আগে ভারতে মসজিদ থেকে মাইকে আযান দেওয়ার বিরোধিতা করে ভারতের কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। সে অভিযোগের প্রেক্ষিতে এবার পাল্টা মামলা করার হুমকিও দিয়েছে রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের শাখা সংগঠন মুসলিম রাষ্ট্রীয় মঞ্চ।