আবুল কালাম , চট্টগ্রাম :

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন (সিএমপি) পুলিশে আবারও ১৭ এএসআই পদের কর্মকর্তাদের এক সাথে মহানগরের বিভিন্ন থানায় বদলি করা হয়েছে।

বুধবার (২২ জুলাই) বিকেলে এ আদেশ দেন চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার মাহাবুবর রহমান।

মূলত সিভিল টিম পরিচালনাকারী এসব এএসআই বিভিন্ন অপকর্মে জড়িত হচ্ছেন এমন অভিযোগে তাদের বদলি করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

এর আগে ১৯ জুলাই সিএমপির তিন জোনের মোট ১২ এসআইকে অন্য জোনের ডিসি অফিসে সংযুক্ত করে বদলি করা হয়।

এ বিষয়ে সিএমপি কমিশনার মো. মাহাবুবুর রহমান বলেন,’কাজের গতিশীলতা আনতে এ প্রশাসনিক রদবদল করা হয়েছে। এটা তো ডেইলি ওয়ার্ক। নিউজ এর মত কিছু নেই।’

সিএমপি কমিশনার বলছেন, সার্বক্ষণিক সিভিল টিম পরিচালনার সুযোগ নেই। শুধু মাত্র জরুরী প্রয়োজনে সিনিয়র অফিসারদের অনুমতি নিয়ে আসামি ধরার কৌশল হিসেবে সিভিল টিম পরিচালনা করা যাবে। এছাড়া এই টিমের অপব্যবহার করে অপরাধ বা অন্যায় করলে বিধি অনুযায়ী শাস্তি অনিবার্য।

গত ১৬ জুলাই রাতে সাদা পোশাকে পুলিশের অভিযানের সময় দশম শ্রেণির ছাত্র সালমান ইসলাম মারুফের (১৯) মা ও বোন আহত হলে তাদের নিয়ে যায় পুলিশ। পুলিশি নির্যাতন, মা-বোন লাঞ্ছিত হওয়ার অপমান সইতে না পেরে সিলিংফ্যানে ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করে  মারুফ। এ ঘটনার পরই নতুন করে আলোচনায় আসে সিভিল টিম।
এ ঘটনার পর ডবলমুরিং থানার এসআই হেলাল খানকে বরখাস্ত করা হয়। ওসিকে শোকজ করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •