ইমাম খাইর :
কক্সবাজার শহরের ঐতিহ্যবাহী ব্যবসায়ী পরিবারের সন্তান ও হোটেল মোটেল জোনের রোদেলা রেস্টুরেন্টের স্বত্ত্বাধিকারী আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিনের শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন।

তিনি গত ১১ জুলাই থেকে ঢাকার শ্যামলীস্থ বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন। এর আগে ৪ জুলাই থেকে ১০ জুলাই পর্যন্ত ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন।

তার অক্সিজেন স্যাচুরেশন কমে যাওয়ায় অবস্থা উন্নতি হচ্ছে না।

শনিবার (১৮ জুলাই) দিবাগত রাত ১২ টার দিকে ঢাকা থেকে মুঠোফোনে এই খবর কক্সবাজার নিউজ ডটকম (সিবিএন)কে জানিয়েছেন গিয়াস উদ্দিনের চাচতো ভাই মাস্টার মাহবুব আলম।

তিনি জানান, গত ১১ জুলাই থেকে তাকে ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে। এখনো শারীরিক অবস্থা সংকটাপন্ন। ২৪ ঘন্টাই তাকে অক্সিজেন সাপোর্টে রাখতে হয়েছে।

গত ১৯ জুন গিয়াস উদ্দিনের করোনা শনাক্ত হয়। ৯ জুলাই ফলোআপ রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। তিনি সাংসারিক জীবনে তিন কন্যা সন্তানের জনক।

গিয়াস উদ্দিন কক্সবাজার বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্সের একনিষ্ঠ খাদেম। বিভিন্ন ধর্মীয় ও সামাজিক কাজেও জড়িত। তিনি শহরের বার্মিজ মার্কেট এলাকার বাসিন্দা মরহুম আহমদ কবির সওদাগরের ছেলে।

তিনি কক্সবাজারের ঐতিহ্যবাহী বিরাম হোটেল পরিবারের সন্তান, পউসী রেস্তোঁরার মালিক আলহাজ্ব আবু বকর সিদ্দিকের ছোট ভাই।

পর্যটন শহরের সুপরিচিত ও প্রসিদ্ধ ব্যবসায়ী গিয়াস উদ্দিনের সুস্থতার জন্য পরিবারের পক্ষ থেকে সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন হাসপাতালে সঙ্গে থাকা চাচতো ভাই মাহবুব আলম।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •