এইচ এন আলম, ঈদগাঁও:

কক্সবাজার জেলার লবণ শিল্প এলাকায় ইসলামপুরের সড়কটি পুকুরে পরিণত হয়েছে। এতে সরকার হারাবে কোটি টাকা রাজস্ব। কক্সবাজার সদরে শিল্পনগরী ইসলামপুরের একটি মাত্র লবণ ট্রাক যাতায়াতের সড়ক। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে উক্ত লবণ মিল হতে ট্রাকযোগে লবণ নিয়ে যায়। মাত্র দুই কিলোমিটারের রাস্তা ছোট-বড় পুকুরে পরিণত হওয়াই লবণবাহী ট্রাক যাতায়াতে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এভাবে চলতে থাকলে লবণ মিল বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম দেখা দিবে। এতে হাজারো লবণ শ্রমিক বেকার হয়ে পড়বে।

ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম এ প্রতিবেদককে জানান, ইসলামপুর বাজার রাস্তার থেকে বটতলী স্টেশন পর্যন্ত একেবারেই চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। তাছাড়াও ঠিকাদারের অবহেলার কারণেই এই প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়ে দিন দিন সড়কের পুকুর গুলা খালে পরিণত হয়ে যাচ্ছে। এসবের মূল কারণ সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার মনিরুজ্জামান মুঠোফোনে  জানান, আমি এ বিষয়ে খবরা-খবর নিয়েছি এবং সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে তা মেরামতের জন্য তাগিদ ও দিয়েছি।

ইসলামপুর লবণ মিল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও  ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মনজুর আলম ওরফে (দাদা মঞ্জুর) জানান, উক্ত সড়কটির ঠিকাদার যে তালবাহানা শুরু করছে তাতে আমাদের লবণ মিল বন্ধ হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। কারণ প্রতিদিন ইসলামপুর থেকে আনুমানিক দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রায় ১৫০ থেকে ২০০ ট্রাক পর্যন্ত গাড়ি লবণ রপ্তানি করতাম। এখন সড়কটির এমন অবস্থা হয়েছে পূকুর গুলা খালে পরিণত হওয়ায় লবণবাহী ট্রাকগুলো যাতায়াত সম্পূর্ণ প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে। এভাবে চলতে থাকলে লবণ মিল বন্ধ হয়ে যাবে তাছাড়াও শ্রমিক ও বেকারত্ব পোহাতে হবে।

অভিযোগের বিষয়ে জানতেই চাইলে ঠিকাদার ফরিদুল আলম এর নাম্বার (০১৭৩২৩৫০৮৭২)- এর  কয়েকবার কল করা  হয়েছে। কিন্তু  যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ উল্লাহ মারুফ বলেন, উক্ত সড়কটির ব্যাপারে আবুল কালাম চেয়ারম্যান আমাকে অবহিত করেছে ।আমি সংশ্লিষ্টদের সাথে আলোচনা করছি। অচিরেই সড়কটি মেরামত করে দেবে বলে আশ্বস্ত করেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •