মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজারের কৃতিসন্তান, সরকারের যুগ্ম সচিব মোহাম্মদ শফিউল আরিফ (৬৫৫০) প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে গত ১৫ জুলাই যোগদান করেছেন। এর আগে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উনি-২ অধিশাখার উপসচিব এবিএম ইফতেখারুল ইসলাম খন্দকার কর্তৃক ৪২৪ নম্বর স্মারকে জারীকৃত এক প্রজ্ঞাপনে যুগ্মসচিব মোহাম্মদ শফিউল আরিফকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব হিসাবে নিয়োগ দেওয়া হয়।

তার আগে মোহাম্মদ শফিউল আরিফ যশোরের জেলা প্রশাসক থাকাবস্থায় গত ৫ জুন সরকারের যুগ্মসচিব হিসাবে পদোন্নতি লাভ করেন।

মোহাম্মদ শফিউল আরিফ যশোর জেলার জেলা প্রশাসক হিসাবে ২০১৯ সালের ১১ জুন থেকে গত ৭ জুলাই পর্যন্ত এবং তার আগে ২০১৭ সালের ৯ আগষ্ট থেকে ২০১৯ সালের ১০ জুন পর্যন্ত লালামনিরহাট জেলার জেলা প্রশাসক হিসাবে কর্মরত ছিলেন।

কক্সবাজার পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরাস্থ এবিসি ঘোনার মরহুম আলহাজ্ব আবু তাহের কুতুবী ও মর্জিয়া বেগম দম্পতির দ্বিতীয় পুত্র মোহাম্মদ শফিউল আরিফ প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইন বিষয়ে সম্মানসহ ১৯তম ব্যাচে ১৯৯৫ সালে কৃতিত্বের সাথে মাষ্টার্স করেছেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে লেখাপড়া শেষ হতেই মোহাম্মদ শফিউল আরিফ দেশের অভিজাত ও মর্যাদাপূর্ণ ক্যাডার হিসাবে পরিচিত ১৯৯৯ সালে ১৮ তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে বিসিএস (প্রশাসন) এ যোগ দেন।

সরকরি চাকুরীর শুরুতেই চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসনে সহকারী কমিশনার হিসাবে দায়িত্বপালন করেন। এরপর চৌদ্দগ্রাম ও লাকসাম উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) হিসাবে সফলতার সাথে কাজ করেছেন। পটিয়া, মহালছড়ি, কাপ্তাই এর ইউএনও, খাগড়াছড়ি জেলা প্রশাসনের সিনিয়র সহকারি সচিব এবং ফেনী জেলা প্রশাসনের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, ফেনী জেলার ডিডিএলজি, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আইন কর্মকর্তা, স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়ের উপসচিব হিসাবে দায়িত্বপালন করেছেন সফলভাবে। তিনি জনপ্রশাসন বিষয়ে লন্ডনের বিখ্যাত ব্রুনেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গ্লোবালাইজেশন এন্ড গভর্নেন্সের উপর স্নাতকোত্তর ডিগ্রীও অর্জন করেছেন কৃতিত্বের সাথে।

মোহাম্মদ শফিউল আরিফ দক্ষ প্রশাসক, জনবান্ধব কর্মকর্তা হিসাবে সরকারি-বেসরকারি পুরস্কার পেয়েছেন অনেক। একজন সৎ, দক্ষ ও পেশাদার কর্মকর্তা হিসাবে কক্সবাজারের গৌরব মোহাম্মদ শফিউল আরিফের সুনাম রয়েছে প্রশাসনের সর্বত্র।

২০০৫ সালের ১০ নভেম্বর কক্সবাজারের শহরের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও অনেক সামাজিক, ধর্মীয় ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সফল প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব ওমর সুলতান ও হোসনে আরার জ্যেষ্ঠ কন্যা শাহীন আক্তারের সাথে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন মোহাম্মদ শফিউল আরিফ। তাদের একমাত্র পুত্র সন্তান সাদমান আরিফ সিয়াম যশোর জেলা স্কুলের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্র ছিলো। সাদমান আরিফ সিয়াম তার পিতা মাতার চাকুরির সুবাদে তাদের সাথে ঢাকা চলে আসায় তাকে ঢাকাস্থ বিয়াম ল্যাবর‍্যটরি স্কুলে ভর্তি করানো হবে বলে জানা গেছে।

কক্সবাজারবাসীর গর্বের ধন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ে যুগ্মসচিব পদে সদ্য যোগদান করা মোহাম্মদ শফিউল আরিফ তাঁর কর্মজীবনে সার্বিক সাফল্যের জন্য মহান আল্লাহতায়লা অসীম রহমত, সকলের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •