cbn  

জাহেদুল ইসলাম, লোহাগাড়া:

লোহাগাড়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ডে দেওয়ানজি পুকুর পাড় হতে আহমদ মেম্বার সড়ক ব্রীক সলিন কাজ না করে সড়কটির নামফলক একই ইউনিয়নের ৯ নং ওয়াডের্র গোল মুহাম্মদ পাড়ার সড়ক স্থাপন করার অভিযোগ উঠেছে।

শনিবার (১৮ জুলাই) সকালে স্থানীরা অভিযোগ করলে সরজমিনে গিয়ে তাদের সাথে কথা বললে তারা অভিযোগ করেন, দেওয়ানজি পুকুর পাড় হতে আহমদ মেম্বারে বাড়ির সড়কটি দীর্ঘ ১০ বছর ধরে কোন কাজ হয়নি। অথচ নামফলক ২০১৫- ২০১৬ অর্থবছরে ২ লাখ টাকার এলজিএসপি -২ অর্থায়নে (দৈর্ঘ্য ২৮০ ফুট ও প্রস্ত ৭ ফুট) দেওয়ানজি পুকুর পাড় হতে আহমদ মেম্বার সড়ক ব্রীক সলিন প্রকল্পটি লোহাগাড়া সদর ইউনিয়ন আলহাজ্ব নুরুচ্ছফা চৌধুরী প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করেন। প্রকল্পটি সভাপতি ছিলেন স্থানীয় মহিলা সদস্য কহিনুর আকতার ।

গোল মোহাম্মদ পাড়ার আজিজুর রহমানের ছেলে সাইফুল ইসলাম বলেন, কে বা কারা আমাদের বাড়ির ওয়ালে নাম ফলকটি লাগিয়েছে আমরা জানি না। তবে আমাদের সড়কটির নাম গোল মোহাম্মদ সড়ক। আহামদ মেম্বার সড়ক ৬ নং ওয়ার্ডে।

স্থানীয় শফিকুর রহমান, আবদুল ছবুর সওদাগর ও ইকবাল হোসেন বলেন, আহমদ মেম্বার সড়কে নাম ভাঙ্গিয়ে গোল মোহাম্মদ পাড়া সড়কে নাম ফলক দিয়ে সড়ক উন্নয়নের কোন কাজই হয়নি। এটি একটি বাটপারি ছাড়া কিছুই নই। বিষয়টি উর্দ্বতন কর্তৃপক্ষে সু-দৃষ্টি কামনা করেন তারা

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো: জাহাঙ্গীর আলম জানান, বিষয়টি স্থানীয়রা আমাকে জনিয়েছেন। কাজটি স্থানীয় মহিলা মেম্বার কহিনুর আক্তারের।

সাবেক ইউপি সদস্য মো. খলিলুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি বলেন, আহমদ মেম্বার সড়কে আমি ইউপি সদস্য থাকা সময় ২টি প্রজেক্টে কাজ করেছিলাম।

জানতে চাইলে স্থানীয় মহিলা মেম্বার কহিনুর আকতার জেনেও না জানার ভান ধরে বলেন, বিষয়টি আমি সরেজমিন গিয়ে দেখে এসে জানাচ্ছি বলে মুঠোফোন ফোন কেটে দেন।

লোহাগাড়া সদর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুচ্ছফা চৌধুরী করোনায় আক্রান্ত হয়ে আইসোলেশনে থাকায় মুঠোফোনে তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

লোহাগাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তৌসিফ আহমদের সাথে বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত করলে, এটি কোন প্রজেক্টে, কোন সালের কাজ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •