মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

সাউদ সোরাইন সায়ান চৌধুরী। কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র। আমাদের কক্সবাজারের সন্তান।সাউদ সোরাইন সায়ান চৌধুরী কঠিন এক ব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছে। সায়ানের জীবন বাঁচাতে তার বাবা-মা তাদের সর্বস্ব নিয়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। শীঘ্রই তার বোন ম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট করাতে হবে বলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। এ চিকিৎসার জন্য তাদের ব্যয় হবে প্রায় অর্ধ্ব কোটি টাকা। এত টাকা তার বাবা-মার কাছে নেই বলে সায়ানের চিকিৎসা থেমে যাবার উপক্রম হয়েছে। এঅবস্থায় সায়ানকে বাঁচাতে হাত বাড়িয়ে দিতে সকলের প্রতি মানবিক আবেদন জানিয়েছেন কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন।

সায়নকে বাঁচাতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের ফেসবুক আইডিতে মঙ্গলবার ১৪ জুলাই দেওয়া মানবিক আবেদন সম্বলিত স্ট্যাটাসটি তুলে ধরা হলো :

“প্রিয় সুধী,
আপনারা জানেন যে, কক্সবাজার জেলা প্রশাসন জেলার সকলের কল্যাণে সবাইকে সাথে নিয়ে কাজ করে থাকে। আমাদের প্রতিটি কাজে কক্সবাজারের সম্মানিত জনপ্রতিনিধি, রাজনীতিবিদসহ সব শ্রেণি-পেশার মানুষ অকুন্ঠ সমর্থন পেয়েছি। আপনাদের সমর্থন ও সহায়তা আমাদের আরও ভালো কাজ করার প্রেরণা যোগায়।

আজ আপনাদের নিকট অত্যন্ত মানবিক এক নিবেদন করতে চাই। আমাদের কক্সবাজারের সন্তান কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র সাউদ সোরাইন সায়ান চৌধুরী কঠিন এক ব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছে। সায়ানের জীবন বাঁচাতে তার বাবা-মা তাদের সর্বস্ব নিয়ে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন। শীঘ্রই তার বোন ম্যারো ট্রান্সপ্লান্ট করাতে হবে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। এ চিকিৎসার জন্য তাদের ব্যয় হবে প্রায় ৫০ লক্ষ টাকা। এত টাকা তার বাবা-মার কাছে নেই বলে তার চিকিৎসা থেমে যাবার উপক্রম হয়েছে।

কক্সবাজার জেলা প্রশাসন স্থানীয় রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, স্বেচ্ছাসেবী ও নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের নিয়ে তার পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে। কিন্তু সর্বশক্তিমান সৃষ্টিকর্তার দয়া আর আমাদের সবার সম্মিলিত অংশগ্রহণ ছাড়া সায়ানের জীবন বাচানোর এ লড়াইয়ে জয়ী হওয়া অসম্ভব। আমি তাই দেশে-বিদেশে অবস্থানরত আপনাদের প্রতি বিনীত আহবান জানাচ্ছি সায়ানের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে। একজন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ও সায়ানের পরিবারের একজন সদস্যের যৌথ পরিচালনায় একটি ব্যাংক হিসাব খোলা হয়েছে, খোলা হয়েছে একটি বিকাশ একাউন্টও। এর যেকোন মাধ্যমে আপনি সায়ানের চিকিৎসা সহায়তা তহবিলে অংশগ্রহণ করুন।

আমাদের সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় জীবন জয়ী হোক।”

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •