বার্তা পরিবেশক :
ফ্রি চিকিৎসা সেবা ফ্রি ওষুধ বিতরণ কর্মসূচি কার্যক্রমের ধারাবাহিক কর্মসূচি অংশ হিসেবে  শহরের ৮ নং ওয়ার্ডে ফ্রি চিকিৎসা সেবা ও বিনামূল্যে ওষুধ বিতরণ করা হয়েছে। শনিবার (১১জুলাই) বিকাল ৩টা থেকে সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত।
শহরের বৈদ্যঘোনা এলাকায় প্রায় শতাধিক মানুষকে এই চিকিৎসা সেবা দেয়া হয়।

করোনাকালীন সংকটে এই উদ্যোগ নিয়ে কাজ করা কক্সবাজার পৌর এলাকায় অষ্টমত দিনে পৌর ৮ নাম্বার ওয়ার্ডে স্থানীয়দের চিকিৎসা সেবা দিতে ছুটে যান, ডাক্তার তামিম হাসান, রিপোর্টার্স ইউনিটি কক্সবাজারের সভাপতি ও কক্সবাজার নাগরিক আন্দোলনের সদস্য সচিব সাংবাদিক এইচ,এম নজরুল ইসলাম, জেলা ছাত্রলীগ নেতা আনছারুল করিম ও যুবনেতা এনামুল কবির।

এসময় অতিথি উপস্থিত ছিলেন সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাহেদা মোরশেদ ।
উক্ত ওয়ার্ডে ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্পের সমন্বয় করেন ছাত্রনেতা সাজ্জাদ আলম।

ফ্রি চিকিৎসা নিতে আসা নুর আয়েশা বেগম জানান, করোনা জন্য ডাক্তার দেখানো যাচ্ছে না। এখানে ফ্রি চিকিৎসা ক্যাম্পের খবর পেয়ে ছুটে আসি। চিকিৎসার পাশাপাশি পেয়েছি বিনামূল্যে ওষুধ।

স্থানীয় সমাজ সেবক তপন দত্ত কুমার বলেন, এটি সত্যিই মহৎ উদ্যোগ। আয়োজকরা মানুষের দোয়া পাবে। ঘরের কাছে ভাল ডাক্তার পেয়ে এলাকার মানুষ উপকৃত হয়েছে।

ব্লাড ডোনার সংগঠক জাহাঙ্গীর আলম জ্যাক বলেন, জাতীর এই চমর মুহুর্তে ফ্রি চিকিৎসা সেবা দিতে যারা ব্যতিক্রমী এক উদ্যোগ নিয়েছেন তাদের অভিনন্দন জানাই। এমন উদ্যোগ সত্যিই প্রশংসনীয়। এর ফলে সাধারণ মানুষ দারুণভাবে উপকৃত হবে।

কক্সবাজার নাগরিক আন্দোলনের সদস্য সচিব ও তরুণ উদ্যেক্তা সাংবাদিক এইচ এম নজরুল ইসলাম জানান, পাড়ায় পাড়ায় ফ্রি চিকিৎসা সেবা দিতে যেটি বুঝলাম তাহল মানুষের এখন ত্রাণ পাওয়ার চাইতে কষ্ট হচ্ছে বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হওয়ার বিষয়টি,যা উপলব্ধি করে আমরা ফ্রি চিকিৎসা ফ্রি ওষুধ বিতরণ কর্মসূচি হাতে নিয়েছি,তবে মানুষের চাহিদা অনুযায়ী আমাদের কার্যক্রম চলমান রাখতে হলে প্রয়োজন ওষুধ, বিত্তবানরা যদি আমাদের অন্তত ওষুধ সরবরাহ করে তাহলে আমরা কর্মসূচি শহর থেকে গ্রামে পর্যন্ত চলে যেতে পারব।

উদ্যোক্তা আনছারুল করিম বলেন,হাসপাতালগুলোতে নিয়মিত ডাক্তার নেই। অধিকাংশ মানুষ বর্তমানে চিকিৎসা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
তাই সাংবাদিক এইচ,এম নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে তরুণ উদ্যোক্তাদের সাথে নিয়ে চলছে চিকিৎসা বঞ্চিত মানুষের খোঁজে ফ্রি চিকিৎসা সেবা ও ফ্রি ওষুধ বিতরণের কাজ।
তবে এ জন্য ডাক্তার তামিম হাসান সকলের প্রশংসা পাওয়ার যোগ্য। সে না হলে মানবিক এই কাজ করা যেত না।

এসময় উপস্থিতি ছিলেন ছাত্রনেতা এবি রায়হান, সাজ্জাদ আলাম,সাঈদ বিন ফরহাদ,জয় বৈদ্য,সাইফুল ইসলাম,রাসেল দে,রাকেশ ধর প্রমূখ।

তরুণ উদ্যোক্তা এনামুল কবির বলেন, ইতোমধ্যে কক্সবাজার পৌরসভার ১, ২, ৩, ৪, ৫, ৬, ৭ ওয়ার্ড ও ঝিলংজা ইউনিয়নের বড়ছড়া, হিমছড়ি, দরিয়া নগরসহ অন্যান্য দুর্গম এলাকার মানুষকে চিকিৎসা সেবা ও ওষুধ বিতরণ করা হয়েছে। এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •