নর্দান বিশ্ববিদ্যালয় শাখার ছাত্রলীগের সভাপতি আইন বিভাগের এলএলএম এ অধ্যয়নরত ছাত্র আনিসুল ইসলাম সোহেলকে নিজ বাড়িতে গুলি করে হত্যার চেষ্টা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
সোমবার (৫ জুলাই) দিবাগত রাতে টেকনাফ বাহারছরার ৩ নং ওয়ার্ডের শিলখালীস্থ বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, আনিসুল ইসলাম সোহেল তার অসুস্থ বোনকে চিকিৎসা করিয়ে কক্সবাজার দুই সপ্তাহ অবস্থান শেষে তার নিজ বাড়িতে যায়।

এ সময় তার বাড়িতে অসুস্থ বোনকে ঝাড়ফোঁড় করার জন্য উঝা আহমদ হোসাইন ছিল। তার অসুস্থ বোনকে দেখার জন্য তার মামা, দুই ফুফু, খালাতো ভাই এবং ফুফাতো ভাইসহ উপস্থিত ছিল। উঝা যখন ঝাড়ফোর করছিল সেই সুবাদে রাত ৩টা পর্যন্ত জাগ্রত ছিল। তার বাড়িতে রান্না ঘরের পাশে রুমে অসুস্থ বোন, ফুফু , ফুফাতোসহ পরিবারের সবাই উপস্থিত ছিল বলে জানা যায় । হঠ্যাৎ রান্না ঘরের পাশের বাথরুমের ছাদ থেকে ধুঁয়া বের হওয়ার ছিদ্র থেকে বন্দুকের নল ঢুকিয়ে দে। সোহেল ওই রুমে ছিল না। হত্যা চেষ্টাকারী কালো কাপড় দিয়ে মুখ ঢাকে রাখে বন্দুকের নল ছিদ্র দিয়ে বের করার সময় দেয়ালে লাগলে খট করে শব্দ করে তার ছোট বোন রান্না ঘরে গিলে দেখার সাথে সাথে চিৎকার দিলে ছাদ থেকে লাফ দিয়ে দ্রুত স্থান ত্যাগ করে।
পরে সকলে বাতি এবং মোবাইল লাইট দিয়ে ধাওয়া করলে বাড়ির উত্তর দিকে পালিয়ে যায়।
স্থানীয় একটি মহল বহুকাল যাবত নিরীহ , অসহায় মানুষদের উপর প্রভাব বিস্তার করতে চাইলে সোহেল তাদের কাজে বাধাপ্রধান করার ফলে না পেরে তার উপর ক্ষেপ্ত হয়ে কিছু স্বার্থান্বেষী লোক পথের কাঁটা সরিয়ে দিতে এলাকায় প্রভাত বিস্তার করার জন্য তাকে প্রাণনাশের চেষ্টা করে আসছে বলে ধারণা করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •