সৈয়দা ফাতিমা মম


কক্সবাজারের আধুনিক রন্ধন শিল্পীর অনলাইন প্লাটফর্ম “স্টারিনা’স কিচেন” এর স্বত্বাধিকারী মারিয়া কারিনা রে। তার জন্ম চট্টগ্রামে, বেড়ে উঠা ঢাকাতে, আর এখন থাকেন তিনি কক্সবাজারের কলাতলীতে। ডাকনামে মারিয়া নামেই সবাই তাকে চিনেন।

বাবা একজন সেফ হওয়ায় ছোটো বেলা থেকেই রান্নার প্রতি তার ঝোঁক ছিল। প্রায়ই বাবার কাছ থেকে টুকটাক রান্না শিখতেন। বাবার উৎসাহে নিজেও মাঝে মধ্যে রান্না করতেন। পরিবার থেকে অনেক প্রশংসা পেয়েছেন তার রান্নার হাতের জন্য। সে থেকে তিনি মনে মনে সিদ্ধান্ত নেন যে, রান্নার মাধ্যমে নিজের ক্যারিয়ার গড়ে তুলবেন।

বাবার অনুপ্রেরনায় অনুপ্রেরিত হয়ে বেশ কিছু প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। ২০০৭ সালে পড়াশুনার পাশাপাশি নারী ভিত্তিক মহিলা উন্নয়ন প্রকল্পে ‘সেলাই ও এম্ব্রডায়রি’ এর উপর কোর্স করেন। মাশরুম উন্নয়ন প্রকল্পে মাশরুমের উপর প্রশিক্ষণ নেয়ার সুযোগ পান। পাশাপাশি তিনি নারী উন্নয়ন সংগঠনের সাথেও যুক্ত ছিলেন। এছারা আরও নানান বিষয়ে প্রশিক্ষণ নিয়ে শিখেছেন।

সময়ের স্রোতে অনেকের কাছ থেকে ঠকে অনেক কিছু শিখেছেন। তার বাবা অসুস্থ থাকায় সংসারের হাল ধরতে প্রথমে পার্টনারশিপে কাপড়ের ব্যবসা করার চেস্টা করেন কিন্তু সেখান থেকে প্রতারিত হয়ে ফিরে আসেন। পরিবাবের হাল ধরতে কিছুদিন চাকরিও করেছেন। বয়স কম এবং মানসিক ভাবে বিপর্যস্ত থাকায় অনেকেই তার এই দুর্বলতার সুযোগ নিয়েছে। চাকরি করতে গিয়েও সেখান থেকে প্রতারনার স্বীকার হয়ে ফিরে আসেন। খারাপ একটা সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছিলেন কিন্তু কাজ করার চেষ্টা থামিয়ে দেন নি।

এরই মাঝে ২০১৫ সালে তার প্রিয় বাবােকে হারান। প্রিয় মানুষ হারানোর বেদনায় কাতর ছিলেন। খুব খারাপ একটা সময় পার করে এসেছেন। এরপর পরিবারের সাপোর্টে হতাশা কাটিয়ে উঠে ঘুরে দাঁড়ান। শোককে শক্তিতে পরিনত করে নতুন উদ্যমে কাজে নামেন।

বিয়ের পর তিনি কক্সবাজারে বসবাস শুরু করে। সেখানে থেকে তার বড় ভাইয়ের পরামর্শে তিনি যে কাজে পারদর্শী সে কাজটা করার কথা ভাবতে থাকেন। অতপর নিজের ভালো লাগাকে গুরুত্ব দিয়ে রান্নার কাজ শুরু করেন, রান্না করাকে একটি শিল্পে পরিনত করেন। বড় ভাই এবং স্বামীর সাপোর্টে ভালো লাগার এই কাজকে ব্যবসায়িক রুপে রূপান্তর করেন। ফেসবুকে “স্টারিনা’স কিচেন” নামে একটি বিজনেস পেইজ ওপেন করেন। বিভিন্ন জায়গা থেকে রান্নার অফার পাওয়া শুরু করেন। কোন রান্নাগুলো ভালো করতে পারেন তার একটা লিস্ট তৈরি করে রান্না করেন এবং অনালেইনে তা প্রচার করা শুরু করেন। ফলে অনলাইন থেকে খাবারের অর্ডার আসতে শুরু করে। সেই সাথে গ্রাহকদের কাছ থেকে অনেক ভালো ফিডব্যাক পেতে শুরু করেন। যার ফলে কাজের উৎসাহ আরও বেড়ে যায়। তারপর থেকে শুরু, আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি।

তার হাতের রকমারি সুস্বাদু রান্না ইতোমধ্যে কক্সবাজারে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। দিনে দিনে তার ব্যবসার পরিধি বেড়ে চলছে। এখন নিজেকে কাজের মাঝে ভীষণ ব্যস্ত রাখতে হচ্ছে। কোন সমস্যা ছাড়া বেশ ভালো ভাবে ব্যবসা পরিচালনা করতে পারছেন। নানান সংগ্রাম ও প্রতিকূলতা পেড়িয়ে রন্ধন কাজে সুনাম অর্জন করেছেন নারী উদ্যোক্তা এবং রন্ধন শিল্পী মারিয়া কারিনা রে।

যদিও ক্যারিয়ার জীবন টা শুরু হয়েছিল মার্কেটিং প্রফেশনাল দিয়ে কিন্তু তার ধ্যান ধারণায় সবসময় ইচ্ছা ছিল নিজে কিছু একটা করবে। রান্নার প্রতি তার প্রবল ভালো লাগা এবং ক্যারিয়ারে প্রতিষ্ঠিত হবার চিন্তা থেকেই জন্ম নেয় স্টারিনা’স কিচেন। তার স্বপ্ন তিনি ভবিষ্যতে অনেক বড় একজন শেফ হবেন। এখন তিনি স্বপ্ন বাস্তবায়নের পথে হাঁটছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •