তাওহীদুল ইসলাম নূরী, চট্টগ্রাম থেকেঃ

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ৯৯ দশমিক ৯৯ শতাংশ সুরক্ষা দেবে এমন একটি কাপড় উদ্ভাবন করেছেন চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সাইন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা।  তাদের উদ্ভাবিত করোনা প্রতিরোধী পোশাক ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বাজারে আনছে দেশের বাণিজ্যিক একটি প্রতিষ্ঠান এবং সুইজারল্যান্ডভিত্তিক একটি কোম্পানি।

সময়োপযোগী এই গবেষণায় নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যাথলজি ও প্যারাসাইটোলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. এএমএএম জুনায়েদ সিদ্দিকী।

গবেষকরা দাবি করেছেন, এই ফেব্রিকস উন্নত সিলভার এবং ভ্যাসিকাল প্রযুক্তির বিশেষ মিশ্রণে তৈরি অ্যান্টি মাইক্রোবিয়াল করোনা কিলার— যা মাত্র দুই মিনিটে ৯৯ দশমিক ৯৯ শতাংশ ভাইরাসকে ধ্বংস করবে। যেটি ২০ বার ধোয়ার পরেও টেক্সটাইল সামগ্রীতে করোনা প্রতিরোধী উপাদান কার্যকর থাকবে।

ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়া করোনা প্রতিরোধী উপাদানসমৃদ্ধ এই টেক্সটাইলস ও অ্যাপারেলসের সংস্পর্শে আসলে সেগুলো দুই মিনিটের মধ্যে ধ্বংস হয়ে যাবে।

করোনা প্রতিরোধী উপাদানের সমন্বয়ে এই ফেব্রিক দিয়ে পিপিই, ফেইস মাস্ক, আইসোলেশন গাউন, ওভারঅল, সু-কাভার, ডেনিম, নন-ডেনিম, প্যান্ট, শার্ট, লেডিস ওয়্যার, টি-শার্ট, পলো শার্ট, হোম টেক্সটাইল, এয়ার ফিল্টার থেকে শুরু করে হাসপাতালের ইউনিফর্মও তৈরী করা যায়।

এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট একজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিম্যাল সায়েন্সে বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে রুট গ্রুপ যৌথভাবে এ নিয়ে অধিকতর গবেষণা কার্যক্রমের জন্য একটি এমওইউ চুক্তি সম্পাদনের দ্বারপ্রান্তে রয়েছেন। গবেষণা কার্যক্রমের যাবতীয় আর্থিক সহায়তা দেবে রুট গ্রুপ।

তিনি আরও বলেন, করোনার কারণে অর্থনীতি প্রায় থমকে গেছে। করোনা কিলার সামগ্রী ব্যবহার করে যদি মানুষকে আবার তার কর্মে ফেরানো যায়, সেজন্য তাদের এ উদ্যোগ। করোনা প্রতিরোধে এখনও সুনির্দিষ্ট কোনো ওষুধ বা ভ্যাকসিন আবিষ্কার না হলেও এ সুরক্ষা সামগ্রীর মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা তাদের করোনা সংক্রমণ থেকে অধিকতর সুরক্ষা নিশ্চিত করতে পারবেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •