আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

নভেল করোনাভাইরাসের বৈশিষ্ট নিয়ে নিয়ে এতদিন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) বলে আসছিল যে, হাঁচি ও কাশির মাধ্যমে নির্গত ড্রপলেট থেকেই ভাইরাসটির সংক্রমণ ছড়ায়। কিন্তু বিভিন্ন দেশের দুই শতাধিক বিজ্ঞানী সংস্থাটিকে জানিয়েছেন, শুধু ড্রপলেট নয় বাতাসেও সংক্রমণ ছড়ায় করোনা।

নিউইয়র্ক টাইমস রোববার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সম্প্রতি ডব্লিউএইচও’র কাছে একটি খোলা চিঠি পাঠিয়ে বিশ্বের ৩২টি দেশের ২৩৯ জন বিশেষজ্ঞ প্রমাণসহ দাবি করেছেন, শুধু ড্রপলেট নয় বাতাসে মিশে থাকা জীবাণু নিঃশ্বাস গ্রহণের সময় গ্রহণ করলেও তা থেকে করোনা ছড়াতে পারে।

অথচ প্রাদুর্ভাব শুরুর পর থেকেই ডব্লিউএইচও বলে আসছে, প্রাথমিকভাবে মুখ ও নাকের মাধ্যমে নির্গত ড্রপলেটের মাধ্যমে এক ব্যক্তি থেকে অপর ব্যক্তির দেহে করোনার সংক্রমণ ছড়ায়। যার অর্থ হলো কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত একজনের হাঁচি, কাশি এবং কথা বলার সময় তা অপরজনে সংক্রমিত হয়।

বিষয়টি নিয়ে নানা গবেষণার পর সেই গবেষণালব্ধ ফলাফল আগামী সপ্তাহে একটি বিজ্ঞান সাময়ীকীতে প্রকাশের পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে চিঠি দেওয়া ওই দুই শতাধিক বিশেষজ্ঞ। তবে বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ বিষয়ে ডব্লিউএইচও’র বক্তব্য জানার চেষ্টা করেও কাউকে পায়নি।

ওই বিজ্ঞানীরা বলছেন, হাঁচির পর বড় কিংবা ছোট ড্রপলেট যাইহোক না কেন বাতাসের মাধ্যমে শ্বাস-প্রশ্বাসের দ্বারা তা করোনার সংক্রমণ ঘটাতে পারে। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, ভাইরাসটি যে বাতাসের মাধ্যমে সংক্রমণ ছড়ায় এ সংক্রান্ত যেসব প্রমাণ পাওয়া গেছে তা নির্দ্বিধায় মেনে নেওয়ার মতো নয়।

সংস্থাটির সংক্রামক রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক কারিগরি দলের প্রধান ডা. বেনিডেটা অ্যালেগ্রানজি নিউইয়র্ক টাইমসকে বলেন, ‘গত কয়েক মাসে আমরা বেশ কয়েকবার বলেছি যে, বাতাসের মাধ্যমে করোনার সংক্রমণ ছড়ানো সম্ভব তবে এর পক্ষে এখনো স্পষ্ট এবং শক্ত কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •