সোয়েব সাঈদ, রামু :

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) এ ইকোনোমিস্ট হিসেবে যোগদানের জন্য নির্বাচিত হয়েছেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব রামুর কৃতি সন্তান আবদুল মন্নান। যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনে অবস্থিত আইএমএফ সদর দপ্তরে তিনি এক বছর মেয়াদে অর্থনীতিবিদ হিসেবে যোগ দিবেন।

আবদুল মন্নান ২৯তম বিসিএস (প্রশাসন) ক্যাডারের সদস্য। বিগত চার বছর ধরে তিনি অর্থ বিভাগের সামষ্টিক অর্থনীতি অনুবিভাগে মধ্যমেয়াদি সামষ্টিক অর্থনৈতিক কাঠামো তৈরি ও বাজেট বক্তৃতা প্রণয়নসহ দেশের ফিসক্যাল পলিসি এবং সার্ক-ফাইন্যান্স সংক্রান্ত নানাবিধ কাজে অংশগ্রহণ করে আসছেন।

ইতোপূর্বে বাংলাদেশ পরিকল্পনা কমিশনে নিয়োজিত থাকা অবস্থায় তিনি সরকারের স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদি উন্নয়ন পরিকল্পনা প্রণয়নে যুক্ত ছিলেন। তিনি সামষ্টিক অর্থনীতি ও বাজেট ব্যবস্থাপনা, দারিদ্র্য বিমোচন, পল্লী উন্নয়ন ইত্যাদি বিষয়ে দেশে এবং দেশের বাইরে জার্মানী, অস্ট্রেলিয়া, মালেশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড প্রভৃতি দেশে প্রশিক্ষণ নেন। তাছাড়া সিঙ্গাপুর, চীন, এবং ভারতে অবস্থিত আইএমএফ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রসমূহে তিনি বিভিন্ন সময়ে ম্যাক্রোইকোনোমিক ডায়গনস্টিকস, ফিনান্সিয়াল পলিসি এন্ড প্রোগ্রাম, এক্সচেঞ্জ রেট পলিসি, ক্যাপিটাল ফ্লো ম্যানেজমেন্ট, ইনক্লুসিভ গ্রোথ, এক্সটার্নাল সেক্টর স্ট্যাটিসটিকস, আন্তর্জাতিক আর্থিক প্রতিষ্ঠানসমূহের আইনি কাঠামো, কর ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি বিষয়ে উচ্চতর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন।

আবদুল মন্নান ২০১৪ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউট (আইবিএ) হতে এমবিএ ডিগ্রী অর্জন করেন। একই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন ‘ঢাকা স্কুল অব ইকনমিক্স’ এ তিনি অর্থনীতি বিষয়ে মাস্টার্স কোর্সে অধ্যয়ন করেছেন এবং বর্তমানে ‘ফিসক্যাল সাসটেইনেবিলিটি’ বিষয়ে গবেষণা করছেন। তিনি ২০১৬ সালে জাপানের কিয়ুশু বিশ্ববিদ্যালয় হতে আন্তর্জাতিক অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক আইন বিষয়ে এলএল.এম ডিগ্রী অর্জন করেন। এসময় তিনি কিয়ুশু বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত ‘ইউরোপীয় ইউনিয়ন স্টাডিজ’ বিষয়ে পোস্ট-গ্র্যাজুয়েট ডিপ্লোমা সম্পন্ন করেন এবং হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয় ও কিয়ুশু বিশ্ববিদ্যালয়ের যৌথ আয়োজনে অনুষ্ঠিত ‘কপিরাইট আইন’ কোর্সে অংশ নেন। তিনি ন্যাশনাল তাইওয়ান ইউনিভার্সিটিতে অনুষ্ঠিত ‘এশিয়ান ল ইনস্টিটিউট’ এর ২০১৫ সালের বার্ষিক কনফারেন্সে ‘ট্র্যাডিশনাল নলেজ সংরক্ষণ’ সংক্রান্ত আইনি কাঠামোর উপর গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। এছাড়া তিনি জাতিসংঘের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য আইন বিষয়ক কমিশন (টঘঈওঞজঅখ) এর এশীয়-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অফিসে (দক্ষিণ কোরিয়ায়) ইন্টার্নশীপ সম্পন্ন করেন।

আবদুল মন্নান রামুর ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের পূর্ব দ্বীপ ফতেখাঁরকুল গ্রামের মরহুম রহমত উল্লাহর ছেলে। তিনি ১৯৯৯ সালে রামু খিজারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় হতে এসএসসি এবং ২০০১ সালে চট্টগ্রাম কলেজ হতে বিজ্ঞান বিভাগে এইচএসসি পাশ করেন। তিনি ২০০৭ সালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় হতে আইন বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রী অর্জন করেন এবং ২০০৮ সালে বিচারক হিসেবে বাংলাদেশ জুডিসিয়াল সার্ভিসে যোগ দেন। তিনি তিন বছরেরও অধিক সময় শরীয়তপুর জেলায় জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে নিষ্ঠা ও সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করেন এবং পরবর্তীতে ২৯তম বিসিএস এর মাধ্যমে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে যোগদান করেন।

রামু হতে উঠে আসা এবং সাফল্য অর্জনের বিষয়ে জানতে চাইলে আবদুল মন্নান বলেন, ‘সফলতা তেমন কিছু নেই। তবে এতটুকু আসার পেছনে পরিবার এবং শিক্ষকদের অবদান অনস্বীকার্য। আমার বাবা একজন সমাজহিতৈষি ব্যক্তি ছিলেন এবং মা একজন ধর্মপ্রান ও পরিশ্রমী মানুষ। আমাদের সকল ভাইবোনের পড়াশোনার বিষয়ে তাঁরা অত্যন্ত সচেতন ছিলেন। এসব কারনে নিজেকে সুবিধাপ্রাপ্ত বলে মনে করি’। আইএমএফ এ নিয়োগ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমি আনন্দিত। আশা করছি আইএমএফ এ কর্মকালীন সময়ে আমার সর্বোচ্চটা দিতে পারব। আইএমএফ এর মতো প্রতিষ্ঠানে অর্থনৈতিক বিশ্লেষন পদ্ধতি, অফিস ব্যবস্থাপনা, কূটনৈতিক যোগাযোগ প্রভৃতি বিষয়ে অনেক কিছু শেখারও আছে’।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •