রুহুল আমিন


কয়েকদিন আগে একটা নিউজ দেখলাম,কুতুবদিয়ায় সাগরতলের মাধ্যমে বিদ্যুৎ যাবে,নিশ্চয় ভালো খবর।
কিন্তু আপনারা কি জানেন?
কুতুবদিয়ায় কারেন্ট এর চেয়ে টেকসই বেড়িবাঁধ অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ?
জলবায়ু ফোরামের সদস্য হিসেবে গতবছর কুতুবদিয়া বেড়িবাঁধ পরিদর্শনে গিয়েছিলাম, সত্যি বলতে কি নিজের চোখে যা দেখলাম,অবাক হচ্ছিলাম বারবার এবং কষ্ট পাচ্ছিলাম।
বঙ্গোপসাগরের সাথে যুদ্ধ করে জনগণ বেঁচে আছে।
সামান্য জোয়ার হলেই কয়েকটা ইউনিয়নে পানিতে তলিয়ে যায় ফলে তাদের দূর্বিষহ জীবনযাপন করতে হয়।
স্থানীয় কিছু লোকের সাথে কথা বলে যা জানলাম,বর্ষাকালে মাঝেমধ্যে তাড়াহুড়ো করে বেড়িবাঁধ তৈরি দেয়,কিন্তু সেই বেড়িবাঁধ একই বর্ষাকালে বিলিন হয়ে যায়।
কেন বিলিন হয়ে যায়?
#প্রথমত, সেই বেড়িবাঁধ দেওয়ার আগে স্থানীয় জনগোষ্ঠীর সাথে কোনো আলাপআলোচনা হয় না।কিভাবে,কি পরিমাণ,কোন নিয়মে বেড়িবাঁধ দিলে তাদের জন্য সুবিধা হয় তা নিয়ে কোনো মতামত নেয় না।
#দ্বিতীয়ত, যে পরিমাণ উচ্চতা নিয়ে বেড়িবাঁধ হওয়ার দরকার সেভাবে বেড়িবাঁধ করে করে না।স্থানীয় লোকের ভাষ্যমতে জানতে পারলাম,প্রায় ১৫/২০ ফুট উচ্চতা সম্পন্ন বেড়িবাঁধ দরকার।
#তৃতীয়ত,কাঁদা মাটি দিয়ে বেড়িবাঁধ তৈরি করে দেয়,যার ফলে বারবার বেড়িবাঁধ বিলিন হয়ে যায়।
যদিও কিছু,কিছু জায়গায় আরসিসি ঢালাই দিয়ে বেড়িবাঁধ দেওয়া হয়েছে কিন্তু যৎসামান্য, ফলে কোনো কাজ হচ্ছে না।
তাই আমি কুতুবদিয়া বাসীকে অনুরোধ করবো,আপনারা বিদ্যুৎ পাওয়ার আনন্দে আনন্দিত না হয়ে,আগে টেকসই বেড়িবাঁধ এর দাবি আদায় করুন।
বাঁচতে না পারলে বিদ্যুৎ নিয়ে কি করবেন?
স্থানীয় জনগণ আরও জানালো,তারা বর্তমানে যে স্থানে অবস্থান করছে,সেখানে প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে তাদের বসতি ছিলো কিন্তু দুঃখের বিষয় তাদের সেই প্রিয় জায়গাটুকু সাগরের গর্ভে হারিয়ে গিয়েছে।
এখন তারা যেখানে বসবাস করছে সেখানে প্রায় দুই,তিন ইউনিয়নে বলতে গেলে কোনো চাষই হয় না কারণ সবসময় সাগরের নোনাজলে সব ভেসে নিয়ে যায়।
তাই আমি কর্তৃপক্ষের নিকট একজন সচেতন নাগরিক হিসেবে অনুরোধ করবো,ঐতিহ্যের ধারক,বাহক এবং খনিজ সম্পদের ভরপুর, মেধাবীদের ভরপুর এবং কুতুবউদ্দিন আওলিয়ার প্রিয় জন্মভূমি কুতুবদিয়াকে রক্ষা করতে হলে টেকসই বেড়িবাঁধে বিকল্প কিছু দেখছি না।
বিদ্যুৎ সংযোগের বিরুদ্ধে না আমি,নিশ্চিয় সেটি একটি ভালো এবং জনবান্ধন উদ্যোগ কিন্তু তাদের জন্য সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ টেকসই বেড়িবাঁধ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •