লোহাগাড়া প্রতিনিধি :
চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় মো: সেলিম উদ্দিন (৪৫) ওরফে বাটোয়ার সেলিম নামের এক ব্যক্তি অটো পার্টসের দোকানে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে গণধোলাইয়ের শিকার হয়েছে। এরপর তাকে পুলিশে দিয়েছে ক্ষুব্ধ ব্যবসায়ীরা। ৫ ঘন্টা পরে মুচলেকা দিয়ে থানা থেকে ছাড়া পায় সেলিম।

বৃহস্পতিবার (২ জুৃলাই) বিকেল ৫টার দিকে উপজেলার আমিরাবাদ পুরান বিওসি এলাকায় ঘটনাটি ঘটে।

সেলিম উদ্দিন উপজেলার আমিরাবাদ মল্লিক ছোবহান বেপারী পাড়ার মৃত আলী আহমদের ছেলে। সে নিজেকে বাংলা টাইমস নামের একটি অনলাইন পোর্টালের সাংবাদিক পরিচয় দেয়।

আটকের ৫ ঘন্টা হাজতবাসের পর একইদিন রাত সাড়ে ১১ টার দিকে স্থানীয় আমিরাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এস এম ইউনুছের জিম্মায় তাকে মুক্তি দেয়া হয়।

ভুক্তভোগী থ্রী স্টার অটো পার্টসের মালিক মো : জিয়া উদ্দিন জানান, বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে গিয়ে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবী করে। এ নিয়ে বাকবিতণ্ডা হয়। এ অবস্থা দেখে পার্শ্ববর্তী ব্যবসায়ীরা এগিয়ে আসলে দৌঁড়ে পালানোর চেষ্টা করে। এরপর উত্তেজিত ব্যবসায়ীরা তাকে গনণধোলাই দেয়।

পরে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে থানা হেফাজতে নিয়ে যায়। ৫ ঘন্টা থানা হাজতবাসের পর একইদিন রাত ১১ টার দিকে স্থানীয় আমিরাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এস এম ইউনুসের জিম্মায় থানা থেকে মুক্তি দেয়া হয়।

আমিরাবাদ ইউপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এস.এম ইউনুছ জানান, ঘটনাটি দুঃখজনক। খবর পেয়ে উভয়জনের সাথে কথা বলে মীমাংসা করে দেয়া হয়েছে এবং জিম্মায় থানা থেকে ছেড়ে নিয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে লোহাগাড়া থানার ওসি জাকের হোসাইন মাহমুদ জানান, জিয়া উদ্দিন নামের এক ব্যবসায়ীর নিকট থেকে চাঁদা দাবীর অভিযোগে সেলিম নামের এক ব্যাক্তিকে ধৃত করে পুলিশে দেয় ব্যবসায়ীরা। পরে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের মধ্যস্থতায় ও জিম্মায় মুচলেকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •