ফেসবুক কর্ণার:
বিদায় উখিয়া-টেকনাফ, বিদায় কক্সবাজার, সময় কত দ্রুত চলে যায়, মনে হয় এইতো সেইদিন জয়েন করলাম অথচ দেখতে দেখতে প্রায় পৌনে ২ বছর হয় গেল, কত স্মৃতি এই সুন্দর শহরে, অপার সৌন্দর্যের এই লীলাভূমিতে, সারাজীবন মিস করব এই শহরকে, বিশেষ করে উখিয়া-টেকনাফের অপূর্ব সমুদ্র সৈকতকে! অশেষ কৃতজ্ঞতা কক্সবাজার জেলার সম্মানিত পুলিশ সুপার স্যারকে যার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে রোহিঙ্গা ক্যাম্প বেষ্টিত অত্যন্ত সেনসিটিভ একটি ক্রাইম জোনে মনোবল দৃঢ় রেখে কাজ করে যাওয়া সম্ভব হয়েছে, স্যারকে অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা! কৃতজ্ঞতা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) স্যারকে সার্বক্ষণিক পাশে থেকে সাপোর্ট করবার জন্য! কৃতজ্ঞতা জেলার অন্যান্য সহকর্মীদের প্রতি, বিশেষ করে আমার নিজ সার্কেল অফিস এবং আমার জুরিসডিকশনের দুটি থানার অফিসার ইনচার্জসহ অন্যান্য সহযোদ্ধাদের প্রতি! ভালোবাসা রইল এলাকার মুক্তিযুদ্ধের আদর্শে উজ্জীবিত প্রবীণ ও তরুণ রাজনীতিবিদ, ছাত্রনেতা, কমিউনিটি পুলিশের সদস্যগণ, সাংবাদিকবৃন্দ এবং অন্যান্য বিভিন্ন পেশার জনগণের প্রতি, সর্বোপরি এলাকার সাধারণ জনগণের প্রতি যারা আমাকে কোন স্বার্থ ছাড়াই কাছের করে নিয়েছিল। চেষ্টা করেছি মানুষকে আমার অথরিটির ভেতর থেকে যতটুকু সম্ভব হয় সাধ্যমত সেবা দেবার জন্য!! আপনাদের সকলের প্রতি রইল আমার আন্তরিক কৃতজ্ঞতা, শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা, সকলে ভালো থাকবেন, আমার সাথে ফেইসবুক, মোবাইল কিংবা সরাসরি কানেক্টেড থাকবেন আজীবন এটাই প্রত্যাশা, আর আমার নতুন কর্মস্থলে সকলকে আমন্ত্রণ রইল।

সৃষ্টিকর্তার অপার কৃপায় আমি নিজেকে অত্যন্ত ভাগ্যবান মনে করছি আমার নতুন কর্মস্থলের জন্য, আমাদের জাতির জনক হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মভূমি গোপালগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হিসেবে আমার পদায়ন হয়েছে, আমি কৃতজ্ঞ বাংলাদেশ সরকার এবং আমার ডিপার্টমেন্ট এর প্রতি আমাকে এই সুযোগ দেবার জন্য! সবাই আমার জন্য দোয়া করবেন যেন আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব আমি যথাযথভাবে নিষ্ঠা, ভালোবাসা ও পেশাদারিত্বের সাথে পালন করতে পারি!

Nihad Adnan Taian  -এর টাইমলাইন থেকে।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •