প্রেস বিজ্ঞপ্তি

রামুর ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষাকেন্দ্র জোয়ারিয়ানালা এমদাদুল উলুম মাদ্রাসার মরহুম প্রবীণ উস্তায, বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টি জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন শাখার দীর্ঘকালীন সভাপতি মাওলানা কারী ফেরদৌস (রহ.) এর সহধর্মিণী, নেজামে ইসলাম পার্টি কক্সবাজার শহর শাখার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা খালেদ সাইফীর মা, জেলা নেজামে ইসলাম পার্টি ও হেফাজতে ইসলামের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ইয়াছিন হাবিবের শ্বাশুড়ি রাশেদা বেগম ( ৬২) ২৮ জুন (রবিবার) দিনগত রাত ৭ টা ৪৫ মিনিটে ইন্তেকাল করেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন। তিনি ৫ ছেলে, ৩ মেয়ের জননী। ২৯ জুন (সোমবার) সকাল ১০ টায় জোয়ারিয়ানালা পূর্বপাড়া বায়তুল ফালাহ জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে মরহুমার নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হবে।
এ মহিয়সী মহিলার ইন্তেকালে গভীর শোক ও সমবেদনা জ্ঞাপন করে বিবৃতি দিয়েছেন, বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টি কক্সবাজার জেলা আমীর মাওলানা হাফেজ ছালামতুল্লাহ, নায়েবে আমীর মাওলানা আ. হ. ম নুরুল কবির হিলালী, সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুহাম্মদ ইয়াছিন হাবিব, যুগ্ম-সম্পাদক মাওলানা আব্দুর রহমান জিহাদী, মাওলানা ফরিদুল হক, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসমাজের কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি হাফেজ মুহাম্মদ আবুল মঞ্জুর, নেজামে ইসলাম পার্টি কক্সবাজার শহর আমীর মাওলানা নুরুল হক চকোরী, সিনিয়র নায়েবে আমীর মাওলানা হাফেজ মোহাম্মদ শফি, নায়েবে আমীর মাওলানা হাফেজ মোহাম্মদ সালেম, সাংগঠনিক সম্পাদক হাফেজ আবুল খাইর, অর্থ সম্পাদক হাফেজ আজিজুল হক গাজী, সহ-সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুফতি সাইফুল ইসলাম সাইফী, প্রচার সম্পাদক মাওলানা মোহাম্মদ আলম, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক মাওলানা জামাল হোছাইন ছিদ্দিকী, বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রসমাজের কক্সবাজার জেলা সভাপতি হাফেজ শওকত আলী, সহ-সভাপতি মুহাম্মদ আব্দুল হামিদ, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ দিদারুল আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ আতাউল্লাহ, শহর শাখার সমন্বয়কারী মুহাম্মদ এহসানুল হক, রামু উপজেলা সভাপতি হাফেজ মোরশেদ ফয়েজ, সাধারণ সম্পাদক মুহাম্মদ আব্দুল করিম, অর্থ সম্পাদক মুহাম্মদ অলি উল্লাহ আরজু,
জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়ন আহবায়ক হাফেজ আশরাফ হোসাইন প্রমুখ।

নেতৃবৃন্দ শোকবার্তায় বলেন, বিশিষ্ট আলেমেদ্বীন মাওলানা কারী ফেরদৌস রহ. এর সহধর্মিণী হিসেবে দ্বীনি খেদমতে মুহতারমা রাশেদা বেগম গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন। বিশেষ করে জোয়ারিয়ানালা মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠালগ্নে যখন মাদ্রাসায় রান্না-বান্নার ব্যবস্থা ছিলোনা তখন সকল উস্তায ও শিক্ষার্থীদেরকে তিনি রান্না করে খাবারের ব্যবস্থা করতেন। তিনি নিজের সকল ছেলেদের আলেমেদ্বীন ও হাফেজে কুরআন হিসেবে গড়ে তুলে একজন মহিয়সী মায়ের মর্যাদায় অভিষিক্ত হয়েছেন।
তাঁর ইন্তেকালে আমরা একজন দ্বীনদার, পরহেজগার মহিয়সী অভিভাবিকাকে হারালাম। নেতৃবৃন্দ মরহুমার রুহের মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবার -পরিজনের প্রতি সমবেদনা জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •