ফারুক আহমদ, উখিয়া :

উখিয়ায় করোনা ভাইরাস জনিত দুর্যোগ মোকাবেলা কালীন সময়েও ভূমিদস্যুদের অপতৎপরতা থেমে নেই। হলদিয়া পালংয়ের খেওয়াছড়ি গ্রামে শত বছরের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে পুরো পরিবারের সদস্যদেরকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে বলে গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার (২৮ জুন) বিকেল ৩ টায়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বর্তমানে দু পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে।
থানায় দায়েরকৃত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, উপজেলার হলদিয়া পালং ইউনিয়নের পূর্ব হলদিয়া খেওয়াছড়ি গ্রামের মৃত গোলাম বারীর পুত্র আনজু মিয়া সিকদার ও তার পরিবার সহ বংশ পরস্পর দীর্ঘ যুগের পর যুগ ধরে পৈত্রিক জায়গার নিজস্ব রাস্তা দিয়ে চলাচল করে আসতেছে।
লিখিত অভিযোগে আরও উল্লেখ রয়েছে, একই এলাকার মৃত আমির হামজার পুত্র নুরুল আলম, ফরিদ আলম ও আলী আহমদের নেতৃত্বে একদল চিহ্নিত ভূমিদস্যু রাস্তা বন্ধ করে দেয়া সহ জমি দখলের পায়তারা করে আসছিল। এরই ধারা বাহিকতায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে শনিবার বিকেলে চিহ্নিত লাঠিয়াল বাহিনী পরিকল্পিতভাবে একমাত্র চলাচলের রাস্তায় টেংরা ঘেরা দিয়ে সম্পূর্ণ বন্ধ করে দিয়েছে।
শাহাব উদ্দীন জানান, ক্ষমতার প্রভাব দেখিয়ে গায়ের জোরে সন্ত্রাসী কায়দায় চলাচলের পথ বন্ধ করে দিয়ে আমাদের পুরো পরিবারকে অবরুদ্ধ ও জিম্মি করে রেখেছে। এমনকি বাঁধা দেয়ার চেষ্টা করলে ভূমিদস্যুরা জীবন নাশের হুমকি ধমকি সহ হামলার চেষ্টা চালায়।
গ্রামবাসীরা জানান, আনজু মিয়া সিকদারের পৈত্রিক নিজস্ব খতিয়ানভুক্ত বিএস ৪৩৭৬ দাগের ৬ শতক জায়গার উপর এই যাতায়াতের রাস্তা । গায়ের জোরে বল প্রয়োগ করে সন্ত্রাসী কায়দায় রাস্তা বন্ধ করে দিয়ে চলাচলের পথ অবরুদ্ধ করা খুবই দুঃখজনক।
উক্ত ঘটনায় আইনের প্রতিকার চেয়ে থানায় আশ্রয় নিয়েছে অসহায় ভুক্তভোগী পরিবার। আনজু মিয়া সিকদারের পুত্র শাহাব উদ্দীন বাদী হয়ে নুরুল আলম, ফরিদ, আলী আহমদ, পারভেজ সহ ৭ জন কে আসামি করে এজাহার দায়ের করেছে বলে জানা গেছে। থানার ডিউটি অফিসার জানান, ঘটনাস্থল তদন্ত করে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •