ওসমান আবির :

গত বছর সেপ্টেম্বরে হঠাৎ প্রচুর বৃষ্টি হওয়ায় পানি বৃদ্ধি পেয়ে এক পর্যায়ে হাজীপাড়া ও দক্ষিণ পাড়া এলাকার মানুষের গাড়ি নিয়ে যাতায়াতের প্রধান যে সড়ক রয়েছে, সে সড়ক থেকে কালভার্টটি ভেঙ্গে আলাদা হয়ে যায়। এরপর থেকে এ পর্যন্ত কালভার্টটি সংস্কার হয়নি।

কালভার্টটি সংস্কার না হওয়ায় গত একবছর ধরে এই এলাকার মানুষের যাতায়তের কষ্টের শেষ নেই।

স্থানীয় অধিবাসী রফিক  বলেন, কোনো ব্যক্তি অসুস্থ হয়ে পড়ে সাথে সাথে তাকে গাড়ি নিয়ে স্থানীয় চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যেতে পারি না কালভার্টটি ভেঙ্গে যাওয়ার কারণে।

তিনি বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় মালামালসহ ঘরবাড়ি নির্মান করতে মালামাল দক্ষিণ পাড়া এলাকা দিয়ে আনতে হয়। এতে তাদের অনেক কষ্ট হয় এবং টাকাও অতিরিক্ত খরচ হয়।

স্থানীয় ইউপি মেম্বার নুরুল আমিন বলেন, হাজি পাড়ার ভেঙ্গে যাওয়া কালভার্ট সম্প্রতি সাবরাং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুর হোসেন সরেজমিনে এসে পরিদর্শন করেছেন। ওই দিন তিনি নিজেই এলাকাবাসিকে দ্রুত সময়ে কালভার্টটি সংস্কারের আশ্বাস দেন। আশা করি অল্প কয়েকদিনের মধ্যে কালভার্ট সংস্কারের কাজ শুরু হবে।

এলাকাবাসী আরো জানায়, হাজী পাড়ার বাসিন্দারা দুটি সড়ক দিয়ে যাতায়াত করে থাকেন। একটি হাজি পাড়া থেকে মাঝের পাড়া হয়ে, অন্যটি হাজী পাড়া থেকে মিস্ত্রি পাড়া হয়ে। বর্তমানে হাজি পাড়া থেকে মাঝের পাড়া হয়ে যে সড়কটি রয়েছে সে সড়কের কালভার্টটি ভাঙ্গার কারণে যানবাহন নিয়ে যাতায়ত বন্ধ রয়েছে।

অন্যদিকে হাজি পাড়া থেকে মিস্ত্রিপাড়া হয়ে যে সড়ক, সে সড়কেও একটি কালভার্ট সংস্কারাধীন ছিল। ইউপি সদস্য ছেনোয়ারা সাবরাং ইউনিয়ন পরিষদের মাধ্যমে সে কালভার্টটি সংস্কারাধীন ছিল সেটিও তিনি কিছু অংশ কাজ করে অসম্পূর্ণ অবস্থায় রেখে দিয়েছেন। যার কারণে এ সড়ক দিয়ে ছোট যানবাহন সহ মানুষের যাতায়ত বন্ধ রয়েছে। বর্তমানে বলতে গেলে দুই দিক দিয়ে হাজী পাড়ার মানুষের ছোট যানবাহনে চলাচল বন্ধ রয়েছে।

এলাকাবাসী ছেনোয়ারা মেম্বার কর্তৃক সংস্কার করা কালভার্টটি সম্পুর্ণরূপে শেষ করে গাড়ি চলাচলের উপযোগী করতে তার দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •