মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

করোনা ভাইরাস সংক্রামণ এলাকা হিসাবে কক্সবাজার জেলা সারাদেশের ৬৪ টি জেলার মধ্যে চতুর্থতে অবস্থানে রয়েছে। কক্সবাজারে গত ২১ জুন পর্যন্ত করোনা ভাইরাস এ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২০৪৭ জন। গত ৬ জুন হতে কক্সবাজার জেলার কক্সবাজার পৌরসভা, চকরিয়া পৌরসভা, উখিয়া উপজেলার ৩ টি ইউনিয়নের আংশিক ও টেকনাফ পৌরসভার আংশিক এলাকাকে রেড জোন ঘোষনা করা হয়েছে।

করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) সংক্রমণের অতি ঝুঁকিতে থাকায় রেড জোন হিসেবে চিহ্নিত দেশের ১০ জেলার ২৭ এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। এই ১০ টি জেলার মধ্যে কক্সবাজার জেলার নাম নেই। আশংকাজনকভাবে করোনা ভাইরাস সংক্রামিত হওয়ার পরও এ ১০ জেলার মধ্যে কক্সবাজার জেলার নাম কেন নেই তা কক্সবাজার জেলাসীর মধ্যে কৌতুহল সৃষ্টি করেছে।

রোববার ২১ জুন মধ্যরাতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় চট্টগ্রাম, বগুড়া, চুয়াডাঙ্গা, মৌলভীবাজার, নারায়ণগঞ্জ, হবিগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, কুমিল্লা, যশোর ও মাদারীপুরকে অতি করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা হিসাবে চিহ্নিত করেছে। এ ১০টি জেলার ২৭টি রেড জোন এলাকায় সরকার সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে আদেশ জারি করেছে।

আদেশে বলা হয়েছে, রেড জোন ঘোষিত এলাকায় বসবাসরত সকল সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, আধা-স্বায়ত্তশাসিত, সংবিধিবদ্ধ ও বেসরকারি অফিস, প্রতিষ্ঠান ও সংস্থায় কর্মরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ক্ষেত্রে এ ছুটি প্রযোজ্য হবে। এই ছুটির মধ্যে সাপ্তাহিক ছুটি অন্তর্ভুক্ত থাকবে।

এছাড়া রেড জোন ঘোষিত এলাকায় অবস্থিত সব সরকারি, আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত, আধা-স্বায়ত্তশাসিত, সংবিধিবদ্ধ ও বেসরকারি অফিস, প্রতিষ্ঠান ও সংস্থায় কর্মরত ও অন্য এলাকায় বসবাসরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ক্ষেত্রেও এ ছুটি প্রযোজ্য হবে।

সাধারণ ছুটি চলাকালে এসব এলাকার লোকজনের চলাচল কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করা হবে। এছাড়া জরুরি পরিষেবা এ সাধারণ ছুটির বাইরে থাকবে বলে আদেশে বলা হয়েছে।

আদেশ অনুযায়ী এসব এলাকায় ২১ জুন থেকে বিভিন্ন মেয়াদে সাধারণ ছুটি থাকবে। কোন কোন রেড জোনে কোন ২১ দিন সাধারণ ছুটি থাকবে আদেশে তাও নির্ধারণ করে দেয়া হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •