শাহী কামরান :

কক্সবাজার শহরের এলপি গ্যাসের নিম্নমানের ক্রস ফিলিং এর একটি গাড়ি জব্দ করা হয়েছে। দেশের করোনা পরিস্থিতি সুযোগ নিয়ে একটি মহল নিম্নমানের গ্যাস সরবরাহ করছে, এমন অভিযোগের ভিত্তিতে কক্সবাজার সদর মডেল থানার এসআই বাবলুর সহায়তায় ২১৫ পিচের একটি টোটাল গ্যাস ভর্তি গাড়ি আটক করে কক্সবাজার এলপিজি পরিবেশক সমিতি।

পরে বিষয়টি বিস্তারিত জানতে চাইলে কক্সবাজার এলপিজি পরিবেশক সমিতির সভাপতি আনোয়ার উল হক ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম আরিফ লিটন বলেন বেশ কিছু দিন ধরে নিম্ন মানের গ্যাস সরবরাহের বিষয়ে অভিযোগ থাকলেও সুনির্দিষ্ট প্রমাণ না পাওয়া গ্যাস ব্যবসার অন্তরালে অসাধু কারবারিদের বিরুদ্ধে তেমন কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারছিনা। তবে আমরা অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছিলাম। তারই ফলশ্রুতিতে  জানতে পারলাম ,২১৫পিছ নিম্নের গ্যাস ভর্তি একটি পিক-আপ কক্সবাজার শহরে প্রবেশ করছে, আমাদের সমিতির অন্যান্য সদস্য ও মডেল থানার একটি টিম এস আই বাবলুর নেতৃত্বে গাড়িটি কালুর দোকানের কাঁচা বাজারের সামনে আটক করে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এই ক্রস ফিলিং করা নিম্নমানের এলপিজি গ্যাসগুলো অবৈধ ভাবে কালুর দোকান এলাকার আমিন এন্টারপ্রাইজ এর মালিক তোফায়েল আহমেদ,বিমান বন্দর সড়কের কক্স ট্রেড লিংক এর মালিক মো শাহাদত, হাসপাতাল সড়কের মায়ের দোয়া এন্টারপ্রাইজ এর মালিক খোরশেদ আমদানি করে বলে জানা যায়। এর আগেও তাদেরকে কক্সবাজার এলপিজি পরিবেশক সমিতির পক্ষ থেকে সর্তক করা হলে ও তারা বিষয়টি আমলে না নিয়ে অসাধু নিম্ন মানের গ্যাস সরবরাহ করে আসছে বলে জানান কক্সবাজার এলপি জি গ্যাস পরিবেশক সমিতির সভাপতি ও সম্পাদক।

পরে নিম্নমানের এই ক্রস ফিলিং করা ২১৫ পিচ টোটাল গ্যাস ভর্তি গাড়িটি কক্সবাজার এলপিজি ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি সরওয়ার কামাল সিকদারের জিম্মায় রাখা হয়। এই বিষয়ে সাধারণ গ্যাসের দোকানিরা জানান, যারা ভাল ব্যবসার অন্তরালে এই অসাধু কারবার করে যাচ্ছে তাদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি ও সঠিক মানের গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত করতে প্রশাসন ও কক্সবাজার এল পি জি পরিবেশ সমিতির কাছে অনুরোধ জানায়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •