নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি:
বান্দরবান নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার দৌছড়ি ইউনিয়নের ২৭৯ নং বাকখালী মৌজার চিকন ছড়ি গ্রামে আপন বড় ভাই আবু সৈয়দ এর মারধর ও এসিড নিক্ষেপে জলসে গেছে ছোট ভাই মোহাম্মদ উল্লাহ র সারা শরীর সহ আরো ২ জনের আংশিক শরীর।

গত শনিবার (১ই জুন) দুপুর ২টার দিকে চিকন ছড়ি গ্রামে নিজেদের বসত ভিটার জায়গা বিরোধ  নিয়ে ঘটনাটি ঘটে  ।
এদের মধ্যে গুরুতর আহত হয়েছেেন আপন ছোট ভাই মোহাম্মদ উল্লাহ।মোহাম্মদ উল্লাহ এখনো কাতরাচ্ছে হাসপাতালের বিছানায়। আহতরা হলেন মৃত আনু মিয়ার পুত্র মোহাম্মদ উল্লাহ (৩৫)স্ত্রী তফুরা বেগম ( ২৮) ভাগিনা শাহাবুদ্দিন (৩০) ।
প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানান পিতার মৃত্যুর পুর্বে  ছোট ভাই মোহাম্মাদ উল্লাহ ও বড় ভাই আবু সৈয়দ কে যার যার জায়গা বন্টন করে দেয়। দীর্ঘ বছর বিনা বাধায় স্ব স্ব জায়গা আবাদ পুর্বক শান্তিপুর্ন ভাবে বসবাস করে আসলে ও গত কিছুদিন যাবত বড় ভাই আবু সৈয়দের লোলপ দৃষ্টি পড়ে ছোট ভাইয়ের জায়গার উপর।
গত শনিবার বড় ভাই আবু সৈয়দ সহ ৫জন মিলে ছোট ভাইয়ের ভোগ দখলীয় জায়গার উপর জোরপূর্বক ঘর বাধার চেষ্টা চালায়। ঐ সময় ছোট ভাই মোহাম্মদ উল্লাহ বাধাদিলে দা, লাঠিসোটা ও দেশীয় অস্রশস্র নিয়ে তাকে এবং তার স্ত্রী ও ভাগিনাকে বেদড়ক পিঠিয়ে গরুতর আহত করে ক্ষান্ত হননি বড় ভাই আবু সৈয়দ।
পরে এসিড মেরে পুরো শরীর জলসে দিয়েছে ছোট ভাই মোহাম্মদ উল্লাহ র। এসময় আরো ৩জন আহত হয়। তাৎক্ষনিক স্থানীয়রা অজ্ঞান অবস্থায় তাদের উদ্বার করে নাইক্ষ্যংছড়ি সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক ককসবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরন করা হয়। বর্তমানে তার অবস্থা আশংকা জনক বলে জানান কর্মরত চিকিৎসক।
উক্ত ঘটনায় নাইক্ষ্যংছড়ি থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। বর্তমানে বিষয়টি তদন্তনাধীন রয়েছে। তবে পুলিশ এপর্যন্ত কাউকে আটক করতে সক্ষম হয়নি।ছোট ভাই মোহাম্মাদ উল্লাহ জানান এখনো বড় ভাই আবু ছৈয়দের হুমকি অব্যাহত রয়েছে।
এবিষয়ে দৌছড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাবিবুল্লাহ জানান এটি একটি অত্যন্ত ন্যাক্কার জনক ঘটনা। তিনি এঘটনায় মর্মাহত। বড় ভাইয়ের এহেন আচরনের নিন্দা ও শাস্তির দাবী জানান।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •