সিবিএন:

স্ত্রী, সাত বছর বয়সী কন্যাসহ করোনা আক্রান্ত হলেন দৈনিক কক্সবাজার পত্রিকার স্টাফ রিপোর্টার মনতোষ বেদজ্ঞ।

মঙ্গলবার (১৬ জুন) কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবের রিপোর্টে তাদের করোনা ধরা পড়ে।

সাংবাদিক মনতোষ বেদজ্ঞ নিজেই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, অনেক সতর্ক এবং সচেতন থাকার পরও আমার করোনা নমুনা পরীক্ষার ফল ‘পজিটিভ’ এলো। আমার স্ত্রী, সাত বছর বয়সী কন্যার রিপোর্টও ‘পজিটিভ’।

গত ১২ জুন রাতে আমার জ্বর আসে। সাথে কিছুটা কোমর ব্যথা। পরদিন সকালে আমি কক্সবাজার সদর হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক বিধান পালের পরামর্শে কিছু ওষুষ সেবন করি। সেই দিন থেকে আমার শরীরে জ্বর বা অন্য কোন উপসর্গ দেখা দেয়নি। আমি সুস্থ আছি। এর আগে আমার সাত বছর বয়সী ও ৯ মাস বয়সী দুই কন্যার কিছুটা জ্বর এসেছিল। তারাও বর্তমানে সুস্থ আছে। কোন উপসর্গ নেই।

কিছুটা উদ্বেগ আছে আমার বৃদ্ধা মাকে নিয়ে। মঙ্গলবার (১৬ জুন) রাত থেকে হঠাৎ করেই তিনি জ্বরে ভুগছেন। জ্বর উঠানামা করছে। সর্দির ভাবও আছে। ওষুধ চলছে।

গত ১৪ জুন আমি কক্সবাজার পৌরসভার স্বেচ্ছাসেবক টিমকে বাসায় ডেকে নমুনা দিই। গতকাল বুধবার রাত ১১ টার দিকে এক জ্যেষ্ঠ সহকর্মীর মাধ্যমে জানতে পারি করোনা ‘পজিটিভ’ তালিকায় আমাদের নামও যুক্ত আছে। পরে তাঁর কাছ থেকে তালিকাটাও সংগ্রহ করি। তবে এখনও পযন্ত জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে ফোন করে বা কোন ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়ে আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি আমাকে জানানো হয়নি।

নমুনা দেওয়ার পর থেকে আমি এবং আমার পরিবার সম্পূর্ণভাবে নি:সঙ্গ আছি। কারও সংস্পর্শে যাইনি। আজ একজনের সহায়তায় আরও কিছু ওষুধ সংগ্রহ করেছি। তিনি গেটের বাইরে এসে তা পৌঁছে দিয়ে গেছেন। এভাবে সামনের সম্ভাব্য কঠিন দিনগুলো আমি এবং আমার পরিবার নি:সঙ্গ থেকেই কাটাবো।

গত প্রায় আড়াই মাসে খুব জরুরী প্রয়োজন ছাড়া আমি ঘর থেকেই বের হইনি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলেছি ঘরে-বাইরে। অন্যের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলার চেষ্টা করেছি। অফিসের কাজও চলছে ঘরে বসে যতটুকু সম্ভব।

পুনশ্চ : আড়াই মাসে সব মিলিয়ে ১০ বারও ঘর থেকে বের না হয়ে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে আমি যদি আক্রান্ত হতে পারি আপনিও কোনওভাবে এ ঝুঁকির বাইরে নন। প্লিজ, ঘরে থাকুন, নিজে নিরাপদ থাকুন, স্বজনদেরও নিরাপদের রাখুন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •