রোবেল বড়ুয়া


এ লজ্জা রাখি কোথায়? বুকের ভিতর এ লজ্জা রাখা বড় দায়, লজ্জার এই ভার আমরা বহন করব নাকি অন্য কারো ঘাড়ের ওপর চাপিয়ে দেব দ্বিধায় পড়ে গেলাম। বাংলাদেশ সংবিধান মতে দেশের একজন নাগরিকের মৌলিক অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসা, বিনোদন এবং সুরক্ষা প্রভৃতি মৌলিক অধিকার উল্লিখিত থাকলেও এগুলো বাস্তবে সাধারণ জনগণের জীবনে কোনো প্রতিফলন দেখছি না।

সড়ক দুর্ঘটনায় আহত চার বছরের শিশু হাসপাতাল থেকে হাসপাতালে ঘুরেও চিকিৎসা না পেয়ে শেষ পর্যন্ত চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর মারা গেছে। সূত্র : দৈনিক আজাদী

আজ লজ্জিত সোনার বাংলাদেশ , করোনার এই মহামারী সময়ে অনেকেই শুধুমাত্র মৌলিক অধিকার নামের এই চিকিৎসা সেবা হতে বঞ্চিত, চিকিৎসা সেবার অভাবে পথে ঘাটে, হাসপাতালের বারান্দায় কত মানুষের জীবন অকালে ঝরে পড়ে যাচ্ছে তার হিসেব আমাদের নেই। বাবার কাঁধে ঝুলিয়ে মৃত্যুর কোলে ঝরে পড়ছে শিশুর প্রাণ, হাসপাতালের বারান্দায় মায়ের ছোটাছুটি, বাবার রাহাজানি, সন্তানের দেহ কাঁধে নিয়ে দিশেহারা হয়ে ছোটাছুটির মতো নির্মম দৃশ্য এ জীবনে বড়ই হৃদয়বিদারক। চিকিৎসা সেবা বঞ্চিত বাবা কার কাছে যাবে? কার কাছেই বা তার ছেলে এইদেশের নাগরিক বলে চিকিৎসা সেবা চাইবে?

যদি কোনো কারণে মৌলিক অধিকার থেকে কেউ বঞ্চিত হয়, তাহলে এ ক্ষেত্রে সংক্ষুব্ধ ব্যক্তি সংবিধানের ১০২ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী হাইকোর্ট বিভাগে রিট আবেদন করার অধিকার রয়েছে।

চিকিৎসা সেবার অভাবে মারা যাওয়া শিশু কি ফিরে পাবেন তার অধিকার হাইকোর্টে রিট করার মাধ্যমে? শিশুর মৃত্যু দেহ কাঁধে নিয়ে হাসপাতালে বারান্দায় ছোটাছুটি করা বাবা কি তার শিশুকে ফিরে পাবেন? রিট আবেদন করে? রাষ্ট্রের কাছে বিনীত প্রশ্ন রইল?

 


লেখক : শিক্ষার্থী ,সমাজবিজ্ঞান বিভাগ, উখিয়া কলেজ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •