অাজ ১৭ জুন জাতীয় দৈনিক কালের কন্ঠ পত্রিকা ও বিডি সময় নিউজ ডটকম অনলাইন গণমাধ্যমে প্রকাশিত ‘রামুর রশিদনগর ইউনয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমডি শাহ অালমের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের কাছে ইউপি সদস্যেদের লিখিক অভিযোগ’ শীর্ষক সংবাদটি অামার দৃষ্টিগোচর হয়েছে। অনলাইনে উল্লেখিত সংবাদের সাথে বাস্তবতার কোন মিল নেই। সংবাদটি সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও মানহানিকর। অাসল কথা হলো অামি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই অামার বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে কয়েকজন ইউপি সদস্য। এখনও তারা সেই ষড়যন্ত্র অব্যাহত রেখেছে। অথচ অামি সব সময় চাই সততার সাথে কাজ করতে। যাতে অনিয়ম, দুর্নীতি, পক্ষপাতিত্তত ও স্বজনপ্রীতির যেন না হয়। কিন্তু কয়েকজন ইউপি সদস্য তাদের উদ্দেশ্যে হাসিল করতে না পারায় অামার বিরুদ্ধে এসব ষড়যন্ত্র লিপ্ত হয়েছে। সংবাদে উল্লেখিত দূর্নীতি ও স্বজনপ্রীতির কোন কিছুর সাথে অামি জড়িত নই।
পত্রিকায় উল্লেখিত ২১ মে ২০২০ খ্রিষ্টাব্দে যে ত্রাণ ইউ এস এইড বরাদ্দ ৭০০ পরিবারের মাঝে বিতরণ করা হয়েছিল। এসময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার-৩ (সদর- রামু) অাসনের সাংসদ আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি, রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা ও রামু উপজেলা টেক অফিসার। বিতরণের পূর্বে ইউপি সদস্যের সমন্বয়ে তালিকা প্রস্তুত করেই তা বিতরণ করা হয়।

সামনে অাসছে ইউপি নির্বাচন তাই গেল বারের পরাজিত শক্তির সাথে অত্র পরিষদের কয়েজন মেম্বার মিলিত হয়ে অামার জনপ্রিয়তা যাতে হ্রাস পায় তার জন্য এই অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। এছাড়াও ইউনিয়ন পরিষদের বরাদ্দকৃত বিধবাভাতা ও বয়স্কভাতা এবং অসহায় গরীবদের প্রণোদনায় দালালী করতে না পারায় তারা অামার বিরুদ্ধে নানা অপবাধ দিয়ে হেয় করার চেষ্টা করে অাসছে । তা এলাকার জনগনও অবগত রয়েছে। করোনার দূর্যোগ মুহুর্তে গরীব ও অসহায় মানুষ যাতে বঞ্চিত না হয় সেজন্য ইউপি সদ্যস্যেদের সাথে সমন্বয় করে রামু উপজেলা টেক অফিসারসহ অামি দাঁড়িয়ে থেকে এগুলো বিতরণ করি যা এলাকার মানুষও জানে। কিন্তু কয়েকজন ইউপি সদস্য এলাকার মানুষ থেকে বয়স্কভাতা বিধবাভাত এবং প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ১০ টাকার ভিজিপি কার্ড দিবে বলে ১০০০ থেকে ৫০০০ হাজার টাকা অাদায় করেছে। তারা এখন তাদের দিতে পারছে না বিধায় অামার বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লাগে
দীর্ঘদিন ধরে এলাকার একটি কুচক্রি মহল অামার বিরুদ্ধে উঠেপড়ে লেগেছে। যেন অামার জনপ্রিয়তা হ্রাস পাই। অামিও চাই সুষ্ট তদন্ত করা হোক। অামি প্রস্তুত অাছি অনলাইনে প্রকাশিত মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন সংবাদের জবাব দিতে। অামি কোন ধরণের দুর্নীতির সাথে জড়িত নাই। অামি উক্ত মিথ্যা সংবাদে প্রতি তীব্র নিন্দা ও জোর প্রতিবাদ জানাচ্ছি। প্রকাশিত সংবাদ নিয়ে প্রশাসন, এলাকাবাসী ও সংশ্লিষ্ট কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছি।

প্রতিবাদকারী
মোঃ শাহ আলম

চেয়ারম্যান, রশিদ নগর ইউনিয়ন পরিষদ, রামু।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •